T20 WC 2021: তীরে এসে তরী ডুবলো বাংলাদেশের, জয়ের খাতা খুললো ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওয়েস্ট ইন্ডিজ টিমছবি টি-২০ ওয়ার্ল্ড কাপ ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

T20 WC 2021: তীরে এসে তরী ডুবলো বাংলাদেশের, জয়ের খাতা খুললো ওয়েস্ট ইন্ডিজ

তীরে এসে তরী ডুবলো বাংলাদেশের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৩ রানে হেরে সুপার ১২-এর লড়াইয়ে টানা তৃতীয় ম্যাচ হারলো মহম্মদউল্লাহরা। সেইসঙ্গে সেমিফাইনালের আশাও কার্যত শেষ হয়ে গেলো টাইগারদের।

তীরে এসে তরী ডুবলো বাংলাদেশের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৩ রানে হেরে সুপার ১২-এর লড়াইয়ে টানা তৃতীয় ম্যাচ হারলো মহম্মদউল্লাহরা। সেইসঙ্গে সেমিফাইনালের আশাও কার্যত শেষ হয়ে গেলো টাইগারদের। ব্যাট হাতে বিশেষ কিছু করে দেখাতে না পারলেও বল হাতে বাজিমাৎ করে শুক্রবার প্রথম জয় তুলে নিলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। জয়ের খুব কাছে গিয়েও হারের মুখ দেখতে হলো টাইগারদের। লিটন দাস(৪৪), মহম্মদউল্লাহ (৩১*) দলকে জয় এনে দিতে ব্যর্থ হলেন।

রান তাড়া করতে নেমে এদিন শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ওপেন করতে নেমে শাকিব আল হাসান(৯) এবং মহম্মদ নায়েম (১৭) দ্রুত ফিরে যান। ওপেনার জুটি ২৭ বল খেলে পার্টনারশিপ গড়েন মাত্র ২১ রানের। মিডিল অর্ডারে সৌম্য সরকার ও মুশফিকর রহিমের ব্যাটও চলেনি। সৌম্য ১৩ বলে ১৭ রান এবং মুশফিক ৭ বলে ৮ রান করেই ড্রেসিংরুমের রাস্তা দেখেন। লিটন দাস ও মহম্মদউল্লাহ জুটি ব্যাক ফুটে চলে যাওয়া দলকে জয়ের রাস্তা দেখাতে থাকেন। লিটন দাস বাইশ গজে দাঁড়িয়ে থাকলেও তাঁর মন্থর ইনিংস দলকে চাপের মুখে ফেলে। যে চাপ কাটিয়ে জয়ে ফেরা হয়নি বাংলাদেশের। ৪৩ বলে ৪৪ রান করে ১৯ তম ওভারের শেষ বলে ফিরে যান লিটন। মহম্মদউল্লাহ দাঁড়িয়ে থাকলেও শেষ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজন হয় ১৩ রানের। মহম্মদউল্লাহ এবং আফিফ হোসেন শেষ ওভারে আন্দ্রে রাসেলের বিপক্ষে ৯ রানই সংগ্রহ করতে সক্ষম হন। ৩ রানে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ জিতে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। মহম্মদউল্লাহ ২৪ বলে ৩১* রানে অপরাজিত থাকেন।

শারজায় শুক্রবার নিয়ন্ত্রিত বোলিংএর মাধ্যমে প্রথম থেকেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বেঁধে রাখে বাংলাদেশ। টপ অর্ডারে ক্রিস গেইল(৪), এভিন লুইস(৬), শিমরন হিটমায়ার (৯), আন্দ্রে রাসেলরা(০) দাঁড়াতেই পারেননি। টপ অর্ডারে রোস্টন চেস একমাত্র ৪৬ বলে ৩৯ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন। অধিনায়ক কায়রন পোলার্ড ১৪ রানে চোট নিয়ে ফিরে যান।

ধুঁকতে থাকা ক্যারিবিয়ানদের এদিন সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যান নিকোলাস পুরান। ১ টি বাউন্ডারি এবং ৪ টি ওভার বাউন্ডারির মাধ্যমে মাত্র ২২ বলে ৪০ রানের এক মহামূল্যবান ইনিংস খেলেন পুরান। শেষ মুহূর্তে ৫ বলে ১৫* রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন জেশন হোল্ডারও। পুরান-হোল্ডার জুটির কাঁধে ভর করে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪২ রান সংগ্রহ করে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

বাংলাদেশের হয়ে এই ম্যাচে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন মেহেদী হাসান, শরিফুল ইসলাম ও মুস্তাফিজুর রহমান। ৪ ওভারে মাত্র ২০ রান দিয়েছেন শরিফুল এবং ২৭ রান দিয়েছেন মেহেদী হাসান। মুস্তাফিজুর এদিন ৪৩ রান খরচ করে ফেলেছেন নির্ধারিত ৪ ওভারে। একটি উইকেটও না শিকার করলেও ৪ ওভারে মাত্র ১৭ রান দিয়ে নজর করেছেন তাসকিন আহমেদ।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in