Ranji Trophy: সেমিফাইনালে মধ্যপ্রদেশের কাছে হেরে রঞ্জি ট্রফি থেকে বিদায় বাংলার

প্রথম ইনিংসে মনোজ তিওয়ারি ও শাহবাজ আহমেদের দুর্দান্ত ব্যাটিং-এর ওপর ভর করে বাংলা ম্যাচে ফিরলেও কাজ হয়নি। প্রথম ইনিংসে ৬৮ রানের লিড নেয় মধ্যপ্রদেশ।
Ranji Trophy: সেমিফাইনালে মধ্যপ্রদেশের কাছে হেরে রঞ্জি ট্রফি থেকে বিদায় বাংলার
বাংলাকে হারানোর পর মধ্যপ্রদেশের খেলোয়াড়রা ছবি সৌজন্য বিসিসিআই ডোমেস্টিক ট্যুইটার হ্যান্ডেল

সেমিফাইনালেই থামতে হল বাংলাকে। রঞ্জি ট্রফির সেমিতে মধ্যপ্রদেশের কাছে ১৭৪ রানে হেরে গেল বাংলা। এই বছরও রঞ্জি ট্রফি অধরাই রয়ে গেল অনুষ্টুপদের।

মধ্যপ্রদেশের কাছে ব্যর্থ হলেন মনোজরা। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে মধ্যপ্রদেশ করে ৩৪১ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথমেই ৫৪ রানে ৫ উইকেটের পতন হয় বাংলার। প্রথম ইনিংসে মনোজ তিওয়ারি ও শাহবাজ আহমেদের দুর্দান্ত ব্যাটিং-এর ওপর ভর করে বাংলা ম্যাচে ফিরলেও কাজ হয়নি। প্রথম ইনিংসে ৬৮ রানের লিড নেয় মধ্যপ্রদেশ।

দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলার স্পিনারদের দাপটে ২৮১ রানে থেমে যেতে হয় আদিত্য শ্রীবাস্তবদের। পরে বাংলার হয়ে লড়াই চালান অধিনায়ক অভিমন্যু ঈশ্বরণ। ৭৮ রান করেন তিনি। অন্যান্য ব্যটাররা কার্যত ব্যর্থ হন দ্বিতীয় ইনিংসে। যার ফলে ১৭৫ রান করে রঞ্জি থেকে বিদায় নিতে হল বাংলাকে।

প্রসঙ্গত, গ্রুপ পর্বে একের পর এক লড়াই করে সেমিতে উঠেছিল বাংলা। সেমিতে জিততে হলে দরকার ছিল ২৫৪ রান। অপরদিকে মধ্যপ্রদেশের বোলারদের মধ্যে সেরা বোলিং করেন কুমার কার্তিকেয়। দুই ইনিংস মিলিয়ে তিনি মোট ৮ টি উইকেট নেন। মধ্যপ্রদেশের ব্যাটারদের মধ্যে প্রথম ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান করেন হিমাংশু মন্ত্রী (১৬৫)। ঐ একই ইনিংসে বাংলার হয়ে মনোজ করেন ১০২ রান। শাহবাজ আহমেদ করেন ১১৬ রান।

এর আগে ঝাড়খণ্ডের বিপক্ষে ম্যাচ ড্র হলেও প্রথম ইনিংসে বিশাল রানের লিড রাখায় সেমিফাইনালে পৌঁছে যায় বাংলা। পাশাপাশি ঐ ম্যাচে প্রথম ইনিংসে বাংলার হয়ে ব্যাট করতে নামা ৯ জন ব্যাটার প্রত্যেকেই অর্ধশতরান করে নজির গড়েছিলো। প্রথম ইনিংসে বাংলার ৭ উইকেটের বিনিময়ে ৭৭৩ রানের জবাবে ২৯৮ রানেই অল আউট হয়ে যায় ঝাড়খণ্ড।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in