বিপক্ষের ঘুষি লেগে ব্যাঙ্গালুরুতে প্রাণ হারালেন কিকবক্সিং প্রতিযোগী, আয়োজকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

ব্যাঙ্গালুরুর কেওয়ান অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা আয়োজিত কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়নশীপে লড়াইয়ের সময় বিপক্ষ প্রতিযোগীর ঘুষি লাগে নিখিলের মুখে। তৎক্ষণাৎ রিংয়ের মধ্যে পড়ে যান তিনি।
নিখিল সুরেশ
নিখিল সুরেশফাইল ছবি সংগৃহীত

কিক বক্সিং চলাকালীন রিংয়ের মধ্যেই লুটিয়ে পড়লেন ভারতের এমএমএ ফাইটার নিখিল সুরেশ (২৩)। ব্যাঙ্গালুরুর কেওয়ান অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা আয়োজিত কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়নশীপে লড়াইয়ের সময় বিপক্ষ প্রতিযোগীর ঘুষি লাগে নিখিলের মুখে। তৎক্ষণাৎ রিংয়ের মধ্যে পড়ে যান তিনি। আজ ভোরে মৃত্যু হয় তাঁর।

এই ঘটনার পর মৃত প্রতিযোগীর বাবা আঙুল তুলেছেন আয়োজকদের দিকে। তাঁর বাবা-মায়ের দায়ের করা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ক্রীড়া অনুষ্ঠানের আয়োজকের বিরুদ্ধে অবহেলার জন্য মামলা করেছে। ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন নিখিলের কোচ বিক্রম মাইসোর নাগরাজ।

মহীশূরের নিখিল ৯ এবং ১০ জুলাই অনুষ্ঠিত কর্ণাটকের কেওয়ান অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা আয়োজিত কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়নশীপে অংশ নিয়েছিলেন। সেখানেই ঘটে এই অঘটন। এই ম্যাচের ভিডিওতে দেখা যায় বিপক্ষ প্রতিযোগীর ঘুষি সরাসরি মুখে লাগার পরেই রিংয়ের মধ্যে লুটিয়ে পড়েন। এরপর ডাকাডাকিতেও কোনোরকম সাড়া পাওয়া যায়নি। চিকিৎসা চলছিল তাঁর। আজ ভোরে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

নিখিলের মৃত্যুর পর তাঁর দলের পক্ষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করা হয়। তাতে লেখা হয়েছে, "গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, যাবতীয় চিকিৎসাকে ব্যর্থ করে নিখিল আজ ভোরে আমাদের ছেড়ে চলে গিয়েছেন। তবে তিনি চিরকাল আমাদের হৃদয় এবং স্মৃতিতে থেকে যাবেন। এত বড় আঘাতের কথা বলার কোনও শব্দ নেই। কারণ এই যন্ত্রণা ছেলে হারানোর মতোই। আমরা প্রার্থনা করি, যেন এই আঘাত সহ্য করার শক্তি পাই। গভীর সমবেদনা।"

সন্তান শোকে বিধ্বস্ত নিখিলের বাবা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আয়োজকদের ওপর। টুর্নামেন্টে কোনো রকম প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা ছিলো না। তা থাকলে হয়তো এভাবে মৃত্যু হতো না নিখিলের। এই ঘটনা কেওয়ান অ্যাসোসিয়েশনের পরিকাঠামোর ওপর প্রশ্ন চিহ্ন রাখছে। নিখিলের কোচ সোশ্যাল মিডিয়াতে তাঁর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। বিক্রম মাইসোর নাগরাজ ফেসবুকে লিখেছেন, সেখানে একটি অ্যাম্বুলেন্স, প্রশিক্ষিত মেডিকেল স্টাফ এবং একটি স্ট্যান্ডার্ড ফাইটিং প্ল্যাটফর্ম থাকলে ও হয়তো মারা যেত না। ওকে বাঁচানো যেত। সংগঠক এবং অ্যাসোসিয়েশনদের সুরক্ষা প্রোটোকল মেনে চলার বিষয়ে যত্নবান হতে হবে।

-With IANS Inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in