IPL: অধিনায়ক বদলেও শেষ রক্ষা হল না, এবার রাজস্থানের কাছে হার হায়দারাবাদের
রাজস্থান রয়্যালসের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

IPL: অধিনায়ক বদলেও শেষ রক্ষা হল না, এবার রাজস্থানের কাছে হার হায়দারাবাদের

ওয়ার্নার বিহীন হায়দরাবাদ এই ম্যাচে রাজস্থানের দেওয়া ২২১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রান সংগ্রহ করেছে। ৫৫ রানে বড় জয় এসেছে রাজস্থান শিবিরে।

লাগাতার হারের জেরে মাঝপথেই অধিনায়ক পরিবর্তন করে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ডেভিড ওয়ার্নারের পরিবর্তে অধিনায়কত্ব দেওয়া হয় কেন উইলিয়ামসনকে। তবে উইলিয়ামসন এসেও দলকে জয়ের স্বাদ এনে দিতে পারলেন না। সাত ম্যাচের ছটিতেই হেরে ধুঁকছে ২০১৬ আইপিএল চ্যাম্পিয়নরা। ওয়ার্নার বিহীন হায়দরাবাদ এই ম্যাচে রাজস্থানের দেওয়া ২২১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রান সংগ্রহ করেছে। ৫৫ রানে বড় জয় এসেছে রাজস্থান শিবিরে।

দ্বিতীয় দফায় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে হায়দরাবাদের কোনো ব্যাটসম্যান বড় ইনিংস খেলতে পারেনি। দুই ওপেনার জনি বেয়ারিস্টো এবং মনীশ পান্ডে শুরুটা ভালো করলেও বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। মনীশ ২০ বলে ৩১ রান করেন এবং বেয়ারিস্টোর ব্যাটে আসে ২১ বলে ৩০ রান। ওপেনার জুটি ফিরে যাওয়ার পরেই একের পর এক উইকেট খসতে থাকে। বিজয় শঙ্কর(৮),কেন উইলিয়ামসন(২০),কেদার যাদব(১৯),মহম্মদ নবি(১৭),আব্দুল সামাদরা(১০) বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেনি। শেষে অপরাজিত থাকেন ভুবনেশ্বর কুমার (১৪*) এবং সন্দীপ শর্মা (৮*)। রাজস্থানের থেকে ৫৫ রান দূরে থেমে যেতে হয় উইলিয়ামসনদের।

রাজস্থানের হয়ে এদিন বল হাতে আগুন ঝরান মুস্তাফিজুর রহমান এবং ক্রিস মরিস। দুজনেই তুলে নিলেন ৩ টি করে উইকেট। এছাড়া একটি করে উইকেট নেয় রাহুল টিওয়াটিয়া এবং কার্তিক ত্যাগী।

এই ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। রাজস্থানের প্রথম উইকেট পড়ে মাত্র ১৭ রানেই। যশস্বী জসওয়াল রশিদ খানের শিকার হন ১২ রান করে। তবে এরপর রাজস্থান দুর্বার গতিতে এগিয়ে যায়। অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন এবং ইংলিশ ওপেনার জস বাটলার দ্বিতীয় উইকেটে যোগ করেন ১৫০ রান। সঞ্জু স্যামসন চারটি বাউন্ডারি এবং দুটি ওভার বাউন্ডারির মাধ্যমে ৩৩ বলে ৪৮ রান করেন।

সঞ্জু স্যামসন বিজয় শঙ্করকে উইকেট দিয়ে ফিরে গেলেও বাটলার ছিলেন। ইংলিশ উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান সানরাইজার্সদের নিয়ে কার্যত ছেলেখেলা করলেন। ৬৪ বলে ১২৪ রানের অনবদ্য ইনিংস খেললেন তিনি। বাটলারের ইনিংসে রয়েছে ১১ টি বাউন্ডারি এবং ৮ টি বিশাল ওভার বাউন্ডারি। বাটলার ফিরে যাওয়ার পর রিয়ান পরাগ ৮ বলে ১৫* রানে এবং ডেভিড মিলার ৩ বলে ৭* রানে অপরাজিত থাকেন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in