অ্যাটলেটিকো আমাকে সুযোগ দিয়েছে, আমার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য ক্লাবের প্রতি কৃতজ্ঞ - সুয়ারেজ

বার্সাতেই থেকে যেতে চেয়েছিলেন লুইস সুয়ারেজ। বলেছিলেন, কোচ যদি প্রথম একাদশে না রাখে তবে বেঞ্চে থাকতেও রাজি তিনি। বন্ধু মেসিও বার্সা কর্তাদের অনুরোধ করেছিলেন সুয়ারেজকে রেখে দেওয়ার জন্য।
অ্যাটলেটিকো আমাকে সুযোগ দিয়েছে, আমার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য ক্লাবের প্রতি কৃতজ্ঞ - সুয়ারেজ
লুইস সুয়ারেজলুইস সুয়ারেজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

বার্সাতেই থেকে যেতে চেয়েছিলেন লুইস সুয়ারেজ। বলেছিলেন, কোচ যদি প্রথম একাদশে না রাখে তবে বেঞ্চে থাকতেও রাজি তিনি। বন্ধু মেসিও বার্সা কর্তাদের অনুরোধ করেছিলেন সুয়ারেজকে রেখে দেওয়ার জন্য। কিন্তু কাতালান ক্লাবটি কার্যত এ বিষয়ে পাত্তাই দেয়নি। সুয়ারেজকে ফ্রী ট্রান্সফারে ছেড়ে দেয় অ্যাটলেটিকোর হাতে। বার্সা যেন সুয়ারেজ নয়, লা লিগা খেতাবই হাতে তুলে দিয়েছিলো অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে।

গতরাতে ভ্যালোদলিদকে হারিয়ে সাত বছর পর লা লিগা খেতাব ঘরে তুলেছে দিয়েগো সিমিওনের দল। চলতি মরশুমে মোট ৬৭ টি গোল করেছে অ্যাটলেটিকো, যার মধ্যে সুয়ারেজের গোলই ২১ টি। ডেড লাইন ম্যাচে অ্যাটলেটিকোর জয় সূচক গোলটি এসেছে এই উরুগুয়ান স্ট্রাইকারের পা থেকেই।

গতকাল ম্যাচের শেষে আবেগ প্রবণ হয়ে পড়েন সুয়ারেজ। মাঠের মধ্যেই পরিবারের সাথে ভিডিও কলে কথা বলতে বলতে চোখের জলে ভেঙে পড়েন। সাংবাদিকদের সামনেও চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি তিনি। সুয়ারেজ বলেন, "বার্সা আমার গুরুত্ব বোঝেনি, আমাকে ছোটো করে দেখা হয়েছে। অ্যাটলেটিকো আমাকে সুযোগ করে দিয়েছে। আমার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য এই ক্লাবের প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবো।"

২০১৪ সালে শেষবার লা লিগা জিতেছিলো অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। দিয়েগো সিমিওনের হাত ধরেই। তারপর কেটে গেছে দীর্ঘ ৭ বছর। বার্সেলোনা এবং রিয়েল মাদ্রিদের আধিপত্যে রাজ করতে পারেনি অ্যাটলেটিকো। অবশেষে দিয়েগো সিমিওনে এন্ড কোং অ্যাটলেটিকোকে এনে দিলো ১১ তম লা লিগা খেতাব। অন্যদিকে এই দশকে প্রথম বারের জন্য এক মরশুমে একটাও শিরোপা জিততে পারলো না রিয়েল মাদ্রিদ।

জিনেদিন জিদান রিয়েল মাদ্রিদকে সম্ভাব্য সবকিছুই দিয়েছে। ২০১৫-১৬ মরশুমে জিদানের হাত ধরে রিয়েল জেতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ, উয়েফা সুপার কাপ এবং ক্লাব বিশ্বকাপ। ২০১৬-১৭ মরশুমে লা লিগা, চ্যাম্পিয়নস লীগ, সুপার কোপা, ক্লাব বিশ্বকাপ, উয়েফা সুপারকাপ রিয়েলকে এনে দেন জিদান। এর পরের মরশুমে জিজুর হাত ধরে চ্যাম্পিয়নস লীগ জেতে রিয়েল মাদ্রিদ। ২০১৯-২০ মরশুমেও লা লিগা ও সুপার কোপা জেতে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। রিয়েলের হয়ে জিদানের হাত খালি থাকেনি কোনো মরশুমেই। তবে এই মরশুমে শূন্য হাতেই শেষ করতে হলো তাঁকে।

লা লিগার এই মরশুমে চ্যাম্পিয়নস লীগের যোগ্যতা অর্জন করেছে চ্যাম্পিয়ন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ, রিয়েল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা এবং সেভিয়া। উয়েফা ইউরোপা লীগের যোগ্যতা অর্জন করেছে রিয়েল সোসিদিয়েদ এবং রিয়েল বেতিস। কনফারেন্স লীগ কোয়ালিফিকেশন খেলবে ভিলারিয়াল। অন্যদিকে রেলিগেশনে চলে গেছে হুয়েস্কা, ভ্যালোদলিদ এবং এইবার।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in