খুনের দায়ে অভিযুক্ত - চাকরি হারাতে চলেছেন সুশীল কুমার, ফেরানো হতে পারে পদ্মশ্রী সহ অন্যান্য পুরস্কার
সুশীল কুমারছবি- অফিসিয়াল পেজ

খুনের দায়ে অভিযুক্ত - চাকরি হারাতে চলেছেন সুশীল কুমার, ফেরানো হতে পারে পদ্মশ্রী সহ অন্যান্য পুরস্কার

দিন দুয়েকের মধ্যেই রেলের উচ্চপদস্থ কর্মচারীর পদ থেকে ছেঁটে ফেলা হতে পারে তাকে। এখানেই শেষ নয়। সুশীলের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হতে পারে পদ্মশ্রী, অর্জুন, রাজীব গান্ধী খেলরত্ন সম্মানও।

ভারতকে দু'বার অলিম্পিকে পদক এনে দেওয়া তারকা কুস্তিগীর সুশীল কুমার এখন খুনের দায়ে অভিযুক্ত। দিল্লি পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে সুশীল হারাতে চলেছেন তার চাকরি। দিন দুয়েকের মধ্যেই রেলের উচ্চপদস্থ কর্মচারীর পদ থেকে ছেঁটে ফেলা হতে পারে তাকে। এখানেই শেষ নয়। সুশীলের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হতে পারে পদ্মশ্রী, অর্জুন, রাজীব গান্ধী খেলরত্ন সম্মানও।

২০০৬ সালে অর্জুন পুরস্কারে সম্মানিত করা হয় সুশীলকে। এরপর ২০০৮ সালে বেজিং অলিম্পিকে দেশকে ব্রোঞ্জ এনে দেওয়ার পর ভারতের ক্রীড়া ক্ষেত্রের সর্বোচ্চ সম্মান রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কারে ভূষিত করা হয় সুশীলকে। ২০১১ সালে পদ্মশ্রী সম্মানেও সম্মানিত করা হয় তারকা কুস্তিগীরকে। বর্তমানে খুনের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়ার পরেই সুশীলের জাতীয় পুরস্কার কেড়ে নেওয়ার জন্য বলছেন একাংশ। প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রসচিব এন গোপালাস্বামী বলছেন, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেওয়ার পর রাষ্ট্রপতি পুরস্কার বাতিল করতেই পারেন। কিন্তু পরে নির্দোষ প্রমাণিত হলে পুরস্কার বাতিলের নির্দেশ তুলে নেওয়া হবে।

দিল্লির ছত্রসাল স্টেডিয়ামে জুনিয়র ন্যাশনাল রেস্টলিং চ্যাম্পিয়ন সাগর রানাকে পিটিয়ে খুন করা হয়। অভিযোগ ওঠে এই ঘটনায় যুক্ত ছিলেন সুশীল এবং তার আখড়ার কয়েক কুস্তিগীর। সুশীলের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হলে, গা ঢাকা দেন এই তারকা। সুশীলের বিরুদ্ধে লুক-আউট সার্কুলার জারি করা হয়েছিলো এবং খোঁজ দিতে পারলে এক লক্ষ টাকার পুরস্কারের ঘোষণা করেছিলো দিল্লি পুলিশ। অবশেষে দিন দুয়েক আগে সুশীল এবং তার বন্ধু অজয়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। আপাতত পুলিশি হেফাজতে রয়েছেন তারা।

গত ৪ ই মে দিল্লির ছত্রসাল স্টেডিয়ামে প্রাক্তন জাতীয় চ্যাম্পিয়ন সাগর রানা এবং তার দুই বন্ধুর উপর অত্যাচার চালানো হয়। অভিযোগ ওঠে সুশীল কুমার এবং তার আখড়ার অন্যান্য কিছু কুস্তিগীররা মিলে তাঁদের প্রচন্ড মারধর করেন। এই ঘটনায় তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সাগর মারা যান এবং বাকি দুজনের চিকিৎসা চলতে থাকে।

কুস্তিগীর সুশীল ৫ ই মে এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছিলেন যে ছত্রসাল স্টেডিয়ামে যে লড়াই হয়েছিল তাতে তিনি বা তার কুস্তিগীররা জড়িত ছিল না। যদিও সুশীলের বিরুদ্ধে হত্যা, অপহরণ ও অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগে এফআইআর দায়ের করা হয়। আর এর পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিলেন সুশীল।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in