‘দিনে ১৮ ঘণ্টা কাজ করুন’ - বেসরকারি সংস্থার সিইও-র মন্তব্যের সমালোচনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

বোম্বে শেভিং কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও শান্তনু দেশপান্ডের এই মন্তব্য ঘিরে আপাতত তোলপাড়। মঙ্গলবার তার লিঙ্কডইন পোস্টের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছেন শান্তনু।
ছবি প্রতীকী
ছবি প্রতীকী গ্রাফিক্স - আকাশ

‘দিনে ১৮ ঘণ্টা কাজ করুন’ বোম্বে শেভিং কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও শান্তনু দেশপান্ডের এই মন্তব্য ঘিরে আপাতত তোলপাড়। মঙ্গলবার তার লিঙ্কডইন পোস্টের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছেন শান্তনু। যেখানে তিনি ফ্রেশারদের কাজের-জীবনের ভারসাম্য খোঁজার পরিবর্তে দিনে ১৮ ঘন্টা কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেছেন, "কান্নাকাটি কোরো না"।

দেশপান্ডে লিখেছেন যে আপনি যখন ২২ বছর বয়সী এবং আপনার চাকরিতে নতুন, তখন নিজেকে এর জন্য সমর্পণ করুন। "ভালভাবে খান এবং ফিট থাকুন, তবে কমপক্ষে ৪-৫ বছরের জন্য দিনে ১৮ ঘন্টা করে কাজ করুন।"

"অকারণ কান্নাকাটি করবেন না। নিরলস থাকুন। তাহলে আপনি আরও ভাল থাকবেন।"

শান্তনুর এই পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের যুবকরা এই মন্তব্যের জন্য বম্বে শেভিং কোম্পানির সিইওর কড়া সমালোচনা করেছে।

এক লিঙ্কডইন ব্যবহারকারী জানিয়েছেন, "আপনার মত মানুষদের জন্যই দলে দলে কর্মীরা পদত্যাগ করছে। আপনার ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাওয়া উচিৎ।"

অন্য এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, "তথ্য প্রযুক্তির প্রজন্মের মধ্যে আমি ভাবছি কখন আমরা উৎপাদন/ফলাফলের সাথে কাজের সময়ের বিচার করা বন্ধ করব। এটা কারখানার শ্রমিকদের নিয়ে শিল্প বিপ্লব নয়।"

একজন ট্যুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন: "১৮-তে থামবেন? কেন ২৪ বা ৪৮ ঘন্টা সরাসরি কাজ করবেন না?”

দেশপান্ডে পোস্ট করেছেন যে তিনি অনেক তরুণকে দেখেন যারা সারাক্ষণ এলোমেলো বিষয়বস্তু দেখেন এবং বিশ্বাস করেন যে "কাজের জীবনের ভারসাম্য, পরিবারের সাথে সময় কাটানো, পুনর্জীবন" গুরুত্বপূর্ণ।

সিইও-র মতে "তবে এটা এত তাড়াতাড়ি নয়। তাড়াতাড়ি আপনার নিজের কাজকে পূজো করুন। তা যাই হোক না কেন। আপনার ক্যারিয়ারের প্রথম ৫ বছরে আপনি যে কাজ করবেন তা বাকি জীবন আপনাকে টেনে নিয়ে যাবে।"

সমালোচনার মুখোমুখি হওয়ার পরে তিনি লেখেন যে, "দিনে ১৮ ঘন্টা কাজের জন্য এত ঘৃণা" কিন্তু "এটি 'আপনার সমস্ত কিছু দেওয়ার এবং তারপর কিছু পাওয়ার' জন্য একটি পথ"।

তিনি আরও বলেন, "যারা বিএসসি-র (বোম্বে শেভিং কোম্পানি) কর্মসংস্কৃতি সম্পর্কে ভাবছেন তাদের জন্য বলি, যে কোন সময় নির্দ্বিধায় এখানে আসতে বা আমাদের যেকোন কর্মীর সঙ্গে কথা বলতে পারেন।"

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in