Uttar Pradesh: কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের আস্থা থাকলেও জিতিন প্রসাদে আস্থাহীন রাজ্য বিজেপি

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিজেপি যোগ নিয়ে শীর্ষ নেতৃত্ব যখন অত‍্যন্ত উৎফুল্ল, তখন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতৃত্ব এই ঘটনাকে গুরুত্ব দিতে নারাদ। তাঁদের মতে জিতিন প্রসাদকে দলে নিয়ে বিজেপির লাভ হবে না।
Uttar Pradesh: কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের আস্থা থাকলেও জিতিন প্রসাদে আস্থাহীন রাজ্য বিজেপি
জিতিন প্রসাদ ও পীযূষ গোয়েলফাইল ছবি সংগৃহীত

কংগ্রেস থেকে সদ‍্য বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের দাপুটে নেতা জিতিন প্রসাদ। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দলে আসা নিয়ে একদিকে যখন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব অত‍্যন্ত উৎফুল্ল, তখন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতৃত্ব এই ঘটনাকে গুরুত্ব দিতেই চাইছে না। তাঁদের মতে জিতিন প্রসাদের কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে আসায় দলের সেরকম কিছু লাভ হবে না।

আগামী বছরই রাজ‍্যের বিধানসভা নির্বাচন। বাংলায় ব‍্যাপক ভরাডুবির পর উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনকে পাখির চোখ করেছে বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে গত ৯ জুন কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন জিতিন প্রসাদ। তাঁকে দলে স্বাগত জানিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেছিলেন, "ভবিষ্যতে উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে অনেক বড় ভূমিকা থাকবে তাঁর (জিতিন প্রসাদ)। উনি এমন একজন নেতা যাঁর মাটির সাথে সম্পর্ক রয়েছে আবার জনপ্রিয় নেতাও বটে।"

যদিও কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এই দাবিতে বিশেষ ভরসা পাচ্ছে না বিজেপির রাজ‍্য নেতৃত্ব। রাজ‍্যের এক সিনিয়র বিজেপির কথায়, একজন ব‍্যক্তি যিনি তাঁর শক্ত দুর্গেই তিনটি নির্বাচনে পরাজিত হয়েছেন, তিনি কীভাবে বিজেপিকে ভোটে জিততে সাহায্য করতে পারেন? তিনি বলেন, বিগত "২০১৪ ও ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচন এবং ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর সাফল‍্যের নিরিখে তাঁর জনপ্রিয়তা বিচার করা হবে। কিন্তু এই তিনটেতেই তিনি হেরে গিয়েছিলেন। একজন নেতা যিনি তাঁর পারিবারিক গড় ধরে রাখতে পারেননি, তিনি কীভাবে আমাদের সহায়তা করবেন?"

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, উত্তরপ্রদেশে ব্রাহ্মণ ভোটের কথা মাথায় রেখে নির্বাচনের আগে বিজেপিতে নেওয়া হয়েছে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক জিতিন প্রসাদকে। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও চেষ্টা করছে জিতিনকে ব্রাহ্মণ সমাজের মুখ করতে। কিন্তু রাজ‍্য নেতৃত্বরা জিতিনকে সেই সুযোগ দিতে নারাজ।

রাজ‍্যের এক বিজেপি নেতা বলেছেন, আমাদের দলে প্রচুর ব্রাহ্মণ নেতা আছেন এবং তাঁরা প্রত‍্যেকেই জিতিন প্রসাদের চেয়ে বেশি জনপ্রিয় এবং নিজেদের কাজেও সফল তাঁরা।

উত্তরপ্রদেশের এক বিজেপি সাংসদও একই কথা বলেছেন। তিনি বলেন, রাজ‍্যে ৫০ জনের বেশি বিধায়ক এবং ৮ জন সাংসদ ব্রাহ্মণ সমাজের অন্তর্গত। এঁদের প্রত‍্যেকেই জিতিন প্রসাদের থেকে বেশি জনপ্রিয়।

অপর এক সিনিয়র বিজেপি নেতার কথায়, রাজ‍্যে বিজেপির মুখ হয়ে উঠতে জিতিন প্রসাদকে এখন দীর্ঘ কয়েক বছর অপেক্ষা করতে হবে।

- with IANS input

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in