বেকারত্ব এবং কোভিড ভারতের শহরবাসীদের সবচেয়ে বেশি চিন্তার কারণ: সমীক্ষা

সমীক্ষা অনুযায়ী শহুরে ভারতীয়রা যেসব বিষয়ে বেশি চিন্তিত - বেকারত্ব (৪২%), করোনাভাইরাস (৪২%), আর্থিক/রাজনৈতিক দুর্নীতি (২৮%, অপরাধ এবং হিংসা(২৫%), দারিদ্র এবং সামাজিক বৈষম্য(২৪%), শিক্ষা (২১%)।
বেকারত্ব এবং কোভিড ভারতের শহরবাসীদের সবচেয়ে বেশি চিন্তার কারণ: সমীক্ষা
প্রতীকী ছবি সংগৃহীত

দ্য ইপ্সোজ 'What Worries the World' বৈশ্বিক মাসিক সমীক্ষা অনুযায়ী ভারতের শহরবাসীদের জন্য সবচেয়ে বেশি উদ্বেগের কারণ বেকারত্ব (৪২শতাংশ) এবং কোভিড (৪২শতাংশ)। দুটিই যুগ্মভাবে আছে প্রথম স্থানে।

আগের মাসে তুলনায় করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বেগ কমেছে ৫ শতাংশ। বেকারত্ব নিয়ে উদ্বেগ বেড়েছে ২শতাংশ।

সমীক্ষা অনুযায়ী শহুরে ভারতীয়রা যেসব বিষয়ে বেশি চিন্তিত সেগুলি হল - বেকারত্ব (৪২শতাংশ), করোনাভাইরাস (৪২শতাংশ), আর্থিক/রাজনৈতিক দুর্নীতি (২৮শতাংশ), অপরাধ এবং হিংসা(২৫শতাংশ), দারিদ্র এবং সামাজিক বৈষম্য(২৪শতাংশ), এবং শিক্ষা(২১শতাংশ)।

ইপ্সোজ ইন্ডিয়ার সিইও অমিত আদরকর সমীক্ষার ফল ব্যাখ্যা করে জানিয়েছেন, দেখা যাচ্ছে বেকারত্ব নিয়ে উদ্বেগ ২ শতাংশ বাড়লেও কোভিড-১৯ নিয়ে উদ্বেগ ৫ শতাংশ মতো কমেছে।তবে দুটোই এখন পাশেপাশে আছে। কোভিডের কারণে শাটডাউন ও বিধিনিষেধের ফলে চাকরির বাজার ধাক্কা খেয়েছে।এখন আস্তে আস্তে সতর্কতার সঙ্গে সব খুললেও কাজ নিয়ে উদ্বেগ কমেনি। যোগানের তুলনায় চাহিদা বেশি। যাঁরা চাকরি হারিয়েছেন তাঁরা এখনও পা রাখার জায়গা খুঁজছেন।কোভিড-১৯ এখনও বিদায় নেয়নি। এটা কারণ-ফলাফল সম্বন্ধীয়।

সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে বিশ্বের শহরবাসীদের যা নিয়ে উদ্বেগ তা হল করোনাভাইরাস (৩৬শতাংশ), বেকারত্ব (৩১শতাংশ), দারিদ্র ও সামাজিক বৈষম্য (৩১শতাংশ), আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতি(২৭শতাংশ) এবং অপরাধ ও হিংসা (২৬শতাংশ)।

ভারতের বাজার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আশাবাদী বাজার যেখানে শহরবাসীর অন্তত ৬৫ শতাংশ মনে করে দেশ ঠিক পথেই এগোচ্ছে। সৌদি আরব সবচেয়ে আশাবাদী যেখানে অন্তত ৯০ শতাংশ নাগরিক মনে করেন তাঁদের দেশ এগোচ্ছে ঠিক দিকেই।

সে জায়গায় বিশ্ব নাগরিকরা নৈরাশ্যবাদীই রয়ে গেছেন।অন্তত ৬৫ শতাংশ মনে করেন তাঁদের দেশ ভুল পথে এগোচ্ছে।

সবচেয়ে নিরাশ যে দেশের নাগরিকরা, সেগুলি হল কলম্বিয়া(৮৯শতাংশ), দক্ষিণ আফ্রিকা(৮৫শতাংশ), এবং পেরু(৮১শতাংশ)।

ইপ্সোজ 'What Worries the World' সমীক্ষা চালানো হয় বিশ্বের ২৮টি দেশে। ২০২০ সালের আগস্ট থেকে ২০২১ সালের ৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২০,০১২ জনের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। আমেরিকা, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, ইজরায়েল এবং কানাডায় ১৮ থেকে ৭৪ বছর বয়সি এবং অন্য সব দেশে ১৬ থেকে ৭৪ বছর বয়সিদের নিয়ে সমীক্ষা হয়। জনসংখ্যা অনুযায়ী তথ্য যাচাই করে নেওয়া হয়।

-With IANS Inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.