প্রতাপ ভানু মেহেতার পদত্যাগ - অশোকা ইউনিভার্সিটি ট্রাষ্টি বোর্ডের উদ্দেশ্যে শিক্ষাবিদদের খোলা চিঠি
অধ্যাপক প্রতাপ ভানু মেহতাফাইল ছবি সংগৃহীত

প্রতাপ ভানু মেহেতার পদত্যাগ - অশোকা ইউনিভার্সিটি ট্রাষ্টি বোর্ডের উদ্দেশ্যে শিক্ষাবিদদের খোলা চিঠি

প্রফেসর প্রতাপ ভানু মেহেতার প্রতি সংহতি জানিয়ে সোনেপাতের অশোকা ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি, কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্যে খোলা চিঠি লিখলেন‌ বিশ্বের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১৫০ জন‌ বুদ্ধিজীবী।

প্রফেসর প্রতাপ ভানু মেহেতার প্রতি সংহতি জানিয়ে সোনেপাতের অশোকা ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি, কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্যে খোলা চিঠি লিখলেন‌ বিশ্বের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১৫০ জন‌ বুদ্ধিজীবী। সরকারের সমালোচনা করার পর প্রতিষ্ঠাতাদের নিরাপত্তা নিয়ে সরব হয়ে সম্প্রতি অশোকা ইউনিভার্সিটি থেকে পদত্যাগ করেছিলেন প্রতাপ ভানু মেহেতা। "A Dangerous Attack On Academic Freedom" শীর্ষক ওই চিঠিতে স্বাক্ষরকারীদের মধ্যে রয়েছেন হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের হোমি কে ভাবা, বার্কলে স্কুল অফ লে-র এরউইন চেমেরিনস্কি, পেনসিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের রজার্স স্মিথ, কার্নেজি এন্ডোমেন্ট অফ ইন্টারন‍্যাশনাল পিস-এর মিলান বৈষ্ণব এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের কেট ও'রেগান সহ একাধিক বিশিষ্ট ব‍্যক্তিত্ব।

চিঠিতে বলা হয়েছে, "বর্তমান ভারত সরকারের একজন বিশিষ্ট সমালোচক এবং একাডেমিক স্বাধীনতার রক্ষক, তিনি তাঁর লেখার জন্য টার্গেট হয়ে গিয়েছিলেন। মনে হয় অশোক ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টিবোর্ড, যাদের উচিত ছিল প্রাতিষ্ঠানিক দায়িত্ব হিসেবে তাঁকে (প্রফেসর মেহেতা) রক্ষা করা, তার পরিবর্তে তাঁরা তাঁকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছিলেন।"

চিঠিতে আরও লেখা হয়, "বিশ্ববিদ্যালয়কে অবশ্যই ভয়হীন অন্বেষণ এবং সমালোচনার আধার হতে হবে। বৌদ্ধিক অনুসন্ধান এবং পাবলিক লাইফের সর্বোচ্চ মূল্যবোধের অনুশীলনে আমরা প্রতাপ ভানু মেহতাকে সমর্থন করছি।"

মঙ্গলবার হঠাৎ করেই অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ‍্যাকাল্টি পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন প্রফেসর প্রতাপ ভানু মেহেতা। তিনি জানিয়েছেন, "... বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে আমার যোগসূত্রকে রাজনৈতিক দায় হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে।" প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের জুলাই মাসে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার প্রফেসর মেহেতার পদত্যাগের দু'দিন পর প্রধানমন্ত্রীর প্রাক্তন মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যম ওই প্রতিষ্ঠানের ফ‍্যাকাল্টি পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। যে পরিস্থিতিতে পড়ে বাধ‍্য হয়ে তাঁর সহকর্মী প্রফেসর মেহেতাকে পদত্যাগ করতে হয়েছে, তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে তিনি পদত্যাগ করেছিলেন।

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজনও প্রতাপ ভানু মেহেতার প্রতি সংহতি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, "স্বাধীন মন্তব্যই হলো একটি মহান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ। এর সাথে আপস করে প্রতিষ্ঠাতারা আসলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই প্রাণকে বাধা দিয়েছেন।"

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in