Oxfam India: দেশের মূলধারার সংবাদমাধ্যমের শীর্ষপদে ৯০ শতাংশ উচ্চবর্ণ: রিপোর্ট

যৌথভাবে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে অক্সফ্যাম ইন্ডিয়া ও নিউজলন্ড্রি। যেখানে বলা হয়েছে - ‘প্রিন্ট মিডিয়া, টিভি নিউজ চ্যানেল এবং ডিজিটাল মিডিয়া-র শীর্ষ স্থানীয় পদে রয়েছেন ৯০ শতাংশ উচ্চবর্ণের মানুষ।
Oxfam India: দেশের মূলধারার সংবাদমাধ্যমের শীর্ষপদে ৯০ শতাংশ উচ্চবর্ণ: রিপোর্ট
গ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

ভারতে মূলধারার সংবাদ মাধ্যমে (Mainstream Media) ৯০ শতাংশ শীর্ষপদ ধরে রেখেছেন- উচ্চ বর্ণের (Upper Class) মানুষ। এই ক্ষেত্রে জায়গা পাননি কোনও আদিবাসী বা দলিত সম্প্রদায়ের মানুষ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব নিয়ে সম্প্রতি যে ‘সমীক্ষা রিপোর্ট’ প্রকাশিত হয়েছে, তাতেই উঠে এসেছে এই চিত্র।

১৪ অক্টোবর, ‘যারা আমাদের কথা বলে: ভারতীয় মিডিয়াতে প্রান্তিক জাতি গোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব’ (Who Tells Our Stories Matters: Representation of Marginalized Cast Groups in Indian Media)- শিরোনামে যৌথভাবে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে অক্সফ্যাম ইন্ডিয়া (Oxfam India) ও নিউজলন্ড্রি (Newslaundry)। যেখানে বলা হয়েছে - ‘প্রিন্ট মিডিয়া (Print), টিভি (TV) নিউজ চ্যানেল এবং ডিজিটাল মিডিয়া (Digital Media)-র শীর্ষ স্থানীয় পদে রয়েছেন ৯০ শতাংশ উচ্চবর্ণের মানুষ। তবে, এই মূলধারার সংবাদমাধ্যমের শীর্ষপদে নেই কোনও তফসিলি জাতি (SC) বা তফসিলি উপজাতি (ST)-র মানুষ।

সমীক্ষা রিপোর্টে বিভিন্ন সংবাদপত্র, টিভি নিউজ চ্যানেল, নিউজ ওয়েবসাইট এবং ম্যাগাজিনের ১২১ টি শীর্ষপদ (এডিটর-ইন-চিফ, ম্যানেজিং এডিটর, এক্সিকিউটিভ এডিটর, ব্যুরো চিফ, ইনপুট/আউটপুট এডিটর) বিশ্লেষণ করা হয়েছে। যেখানে দেখা গেছে- ১০৬ টি শীর্ষপদে রয়েছেন উচ্চবর্ণের মানুষ। ৫ টি পদে অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণী (OBC), এবং ৬ টি শীর্ষপদে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ রয়েছেন। তবে, ৪ জনের কোনও পরিচয় জানা যায়নি।

২০২১ সালের এপ্রিল মাস থেকে ২০২২ সালের মার্চ মাসের মধ্যে এই সমীক্ষা করা হয়েছে। যেখানে বিভিন্ন সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিনের ২০,০০০-টির বেশি নিবন্ধ, টেলিভিশনের ক্ষেত্রে ৭৬ জন অ্যাংকর এবং ৩,৩১৮ জন প্যানেলিস্ট-সহ ২,০৭৫টি প্রাইম-টাইম বিতর্ক, এবং ১২ মাসে একাধিক অনলাইন মিডিয়ার রিপোর্ট বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

এই তথ্য বিশ্লেষন করে জানা গেছে- সামান্য হলেও ভারতীয় মিডিয়াতে এসসি, এসটি এবং ওবিসিদের সামগ্রিক প্রতিনিধিত্বের চিত্রে পরিবর্তন এসেছে। ২০১৯ সালের এক রিপোর্টে জানা গিয়েছেল- বিভিন্ন মিডিয়াতে সাধারণ জনগোষ্ঠী থেকে সাংবাদিকদের সংখ্যা ছিল ৮৮ শতাংশের অধিক। তবে, ২০২২ সালের রিপোর্টে সেই সংখ্যা কমে ৮৬ শতাংশে নেমে এসেছে। অর্থাৎ, এই ক্ষেত্রে ২ শতাংশ সাংবাদিকের সংখ্যা বেড়েছে এসসি, এসটি এবং ওবিসি থেকে।

সবচেয়ে বড় বিষয় হল- ২০১৯ সালে তপশিলি জাতি (SC) থেকে সাংবাদিক হিসাবে তেমন কেউ ছিলেন না। তবে, ২০২২ সালে সেই সংখ্যা গড়ে ৩.১৭ শতাংশে পৌঁছেছে।

অক্সফাম ইন্ডিয়ার সিইও অমিতাভ বেহার বলেছেন, 'তিন বছরের মধ্যে আমাদের দ্বিতীয় রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে যে- ভারতে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের নিউজরুমে কোনও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি নেই। সমস্ত ক্ষেত্রে মিডিয়া সংস্থাগুলির পরিচালকরা দলিত, আদিবাসী এবং বহুজন সম্প্রদায়ের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হচ্ছেন।'

তিনি বলেন, শুধু কভারেজ (সম্প্রচার) নয়, দেশের মিডিয়াকে নিয়োগের ক্ষেত্রেও সাম্যের (সাংবিধানিক) নীতিকে সমুন্নত রাখতে হবে।

Oxfam India: দেশের মূলধারার সংবাদমাধ্যমের শীর্ষপদে ৯০ শতাংশ উচ্চবর্ণ: রিপোর্ট
'গোপনে' শিল্পপতিদের ১.২৯ লক্ষ কোটির ঋণ মকুব কানাড়া ব্যাঙ্কের! নয়া কেলেঙ্কারি প্রকাশ্যে

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in