সংস্থা বিরোধী মত প্রকাশ করা যাবে না, সাংবাদিকদের ইমেল করে নির্দেশিকা জারি মালিকপক্ষের

নির্দেশিকা অনুযায়ী, সাংবাদিকরা রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের অবস্থান স্পষ্ট করে জানাতে পারবেন না।
সংস্থা বিরোধী মত প্রকাশ করা যাবে না, সাংবাদিকদের ইমেল করে নির্দেশিকা জারি মালিকপক্ষের
ছবি - প্রতীকী

এবার সংবাদমাধ্যমের মালিকরাও সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধ করতে উঠে পড়ে লেগেছেন। কর্পোরেট মিডিয়ায় সাংবাদিকদের মেল করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, সংস্থার মত বিরোধী কোনও বক্তব্য কোনও সাংবাদিক নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়ায় পেশ করতে পারবেন না। কোনও রাজনৈতিক দলের পক্ষ নিয়েও মত প্রকাশ করা যাবে না।

বর্তমানে বেশিরভাগ সংবাদমাধ্যমই কেন্দ্র ও রাজ্যের শাসক দলের মুখপাত্র হয়ে গিয়েছে। যা গোদি মিডিয়া নামে পরিচিত। সেই গোদি মিডিয়ার মধ্যেও মালিক নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সাংবাদিকরা তাদের মতামত প্রকাশ করতে পারবেন না বলা হয়েছে। যদিও এ ব্যাপারে কেউ এখনও প্রকাশ্যে মুখ খোলেননি।

লকডাউনের বাজারে এমনিতেই মানুষ কর্মহীনতায় পড়েছেন। সেখানে চাকরি বজায় রাখতে সবাই মুখে কুলুপ আঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মিডিয়ানামা এবং দি নিউজ মিনিট নামে পোর্টালে এধরনের সংবাদ প্রকাশিত হয়। টিএনএম জানিয়েছে, টাইমস ইন্ডিয়া গ্রুপের টাইমস নেটওয়ার্কের সাংবাদিকরা এই নির্দেশিকা মেল পেয়ে কার্যত হতবাক। বলা হয়েছে, মিডিয়ায় যে তথ্য সংগ্রহ করা হয়, তা গোপন রাখতে হবে।

অনেকেই নিজস্ব মত প্রকাশের গোষ্ঠী বা গ্রুপ তৈরি করেন। কর্তৃপক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, কোনও রকম ভাবেই সংস্থা বিরোধী মতামত সেই গ্রুপে প্রকাশ করা যাবে না। দেশের বৃহত্তম সংবাদ মাধ্যম গোষ্ঠী টাইমস গ্রুপ। ইমেলে দেওয়া নির্দেশিকায় কেন এই নীতি মেনে চলতে হবে, তাও স্পষ্ট করে বলে দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সাংবাদিকরা যেন কোনও মিডিয়ায় মত প্রকাশ না করেন।

শুধু তাই নয়, সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যম যে বিষয়ে, যে ভাবনায় মত প্রকাশ করবেন, তার বিরুদ্ধে কোনও মত প্রকাশ করা যাবে না। তারা যেন কোনওভাবে ধর্মীয় মত বা রাজনৈতিক মত প্রকাশ না করেন। সাংবাদিকরা কোন পোস্ট বা বক্তব্যে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কোনও রাজনৈতিক মত নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের অবস্থান স্পষ্ট করে জানাতে পারবেন না।

সাংবাদিকরা প্রতিদ্বন্দ্বী কোনও চ্যানেলের সাংবাদিকের পোস্ট লাইক বা রিটুইট করতে পারবেন না। তবে বিদেশি মিডিয়ার পোস্টে লাইক বা টুইট করার ক্ষেত্রে কোনও বিধি-নিষেধ জারি করা হয়নি। এই নির্দেশ জারি হওয়ার পরে যাবতীয় টুইট পোস্ট সরিয়ে ফেলার কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেশের কোনও ধর্মীয় বা রাজনৈতিক ইস্যুতে মত প্রকাশ করা যাবে না। সোশ্যাল মিডিয়ায় কোন ট্রল বা বিতর্কে অংশ নিতে পারবে না। এডিটরের অনুমোদন ছাড়া সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও মতামত বা বক্তব্য রাখতে পারবেন না।

প্রসঙ্গত, অনেক আগেই ইন্ডিয়া টুডে কর্তৃপক্ষ ইমেল করে সাংবাদিকদের একই নির্দেশিকা জারি করেছিল। কেউ এই নির্দেশ অমান্য করলে সরাসরি ছাঁটাই করে দেওয়া হবে বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়। একই সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হয়, এই নির্দেশে সাংবাদিকদের মত প্রকাশে বাধা দেওয়া হচ্ছে না। সংবাদমাধ্যমের মানোন্নয়নের জন্য এ ধরনের নির্দেশ কার্যকর করা হচ্ছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in