বিজেপি ও মমতার লক্ষ্য “কংগ্রেস মুক্ত ভারত” - RSS ঘনিষ্ঠ পত্রিকার প্রতিবেদনে দাবি

লেখক লিখেছেন – “ নরেন্দ্র মোদীর স্বপ্ন ছিল কংগ্রেস মুক্ত ভারত। আমার মনে হচ্ছে মমতা ব্যানার্জিও এই স্বপ্নে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন।”
বিজেপি ও মমতার লক্ষ্য “কংগ্রেস মুক্ত ভারত” - RSS ঘনিষ্ঠ পত্রিকার প্রতিবেদনে দাবি
গ্রাফিক্স - নিজস্ব

আরএসএস ঘনিষ্ঠ বাংলা পত্রিকা ‘স্বস্তিকা’-র এক প্রতিবেদন ঘিরে চাঞ্চল্য রাজনৈতিক মহলে। প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে - বিজেপি এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উভয়ই “কংগ্রেস-মুক্ত ভারত” এর সংকল্প নিয়েছেন।

যদিও বিজেপি স্বস্তিকার থেকে নিজেদের দূরত্ব তৈরি করে প্রতিবেদন ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে। তৃণমূলও বিজেপির সাথে তাদের বোঝাপড়ার কথা অস্বীকার করেছে। এদিকে কংগ্রেস বলছে – “ ঝুলি থেকে বেড়াল বেরিয়ে পড়েছে।”

প্রতিবেদনের শিরোনাম “কেন ইতিহাস মুছতে চাইছেন মমতা? শিল্প আগ্রহ নাকি সোনিয়া খতম?” নির্মাল্য মুখোপাধ্যায়ের লেখা এই প্রতিবেদন ১৩ই ডিসেম্বর প্রকাশিত হয়েছে। নয়া দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈঠককে উল্লেখ করে দাবি করা হয়েছে যে উভয়ই “কংগ্রেস-মুক্ত ভারতের” স্বপ্ন ভাগ করে নিচ্ছেন।

লেখক আরও লিখেছেন – “ওনার বদলে যাওয়া দৃষ্টিভঙ্গি থেকে এটা স্পষ্ট হয়ে গেছে যে তিনি সেই মমতা ব্যানার্জি নন। নরেন্দ্র মোদীর স্বপ্ন ছিল কংগ্রেস মুক্ত ভারত। আমার মনে হচ্ছে মমতা ব্যানার্জিও এই স্বপ্নে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন। তাই তিনি ইতিহাস মুখে দিতে চান, যাতে এই স্বপ্ন বিক্রি করা যায়।”

পত্রিকার সম্পাদক তিলক রঞ্জন বেরাকে বারবার ফোন করলেও সাড়া মেলেনি। RSS-র রাজ্য সাধারণ সম্পাদক জিষ্ণু বসুও এই বিষয়ে বিশেষ মন্তব্য করতে চাননি। তিনি বলেন – “আমি এখনও প্রতিবেদনটি পড়িনি, তাই এই বিষয়ে মন্তব্য করতে পারব না।” বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য এই প্রতিবেদনের বক্তব্যকে ‘ভিত্তিহীন’ বলে মন্তব্য করেছেন।

অন্যদিকে কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যের কথায়, “মোদী ও মমতার সঙ্গে গোপন সমঝোতা হয়ে গেছে। উভয়ের একটা লক্ষ্য, কংগ্রেসকে ভেঙে চুরমার করে দাও। কংগ্রেসকে খতম করা মোদী ও মমতার দু’জনেরই লক্ষ্য!”

বিজেপি ও মমতার লক্ষ্য “কংগ্রেস মুক্ত ভারত” - RSS ঘনিষ্ঠ পত্রিকার প্রতিবেদনে দাবি
দীঘার জগন্নাথ মন্দিরের জন্য ১২৮ কোটি বরাদ্দ, 'মন্দির রাজনীতি'তে BJPকে টেক্কা দিতে চায় TMC!

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in