বিজেপির IT Cell কীভাবে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে, তা ফেসবুক জানে! আবারও কাঠগড়ায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ

কংগ্রেস ফেসবুকের কার্যকলাপ সম্পর্কে যৌথ সংসদীয় কমিটির তদন্ত দাবি করেছে। দলের মুখপাত্র পবন খেরা বলেছেন, ঘৃণার উৎসের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ করছে না ফেসবুক।
বিজেপির IT Cell কীভাবে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে, তা ফেসবুক জানে! আবারও কাঠগড়ায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ
ছবি - নিউজক্লিক

ভারতে ফেসবুকের মাধ্যমে আপত্তিকর, সাম্প্রদায়িক ভাষ্য প্রচার করা হচ্ছে। সম্প্রতি ফেসবুকে প্রাক্তন কর্মী ফ্রান্সেস হজেন এমনটাই অভিযোগ করেছিলেন। বাংলা ও হিন্দিতে এই ধরনের ঘৃণা জাগানো প্রচার চলছে অবাধে। এব্যাপারে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তিনি। বিজেপির আইটি সেল কীভাবে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে, তা ফেসবুক জানে বলে দাবি করেছিলেন তিনি। কিন্তু ফেসবুক কোনও রকম ব্যবস্থা নেয়নি এর বিরুদ্ধে।

ফেসবুকে একাধিক অভ্যন্তরীণ রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে, ফেসবুক নিজেই যেসব অ্যাকাউন্টগুলির সুপারিশ করেছিল, সেগুলি তীব্র মুসলিম বিদ্বেষ, সাম্প্রদায়িক ও বিকৃত জাতীয়তাবাদের ভরা। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ একটি পরীক্ষামূলক একাউন্ট খোলে। ফেসবুকের অ্যালগরিদমে আসা পেজ বা গ্রুপে কী আছে, তা দেখার দায়িত্বে ছিলেন তিনি। তিন সপ্তাহের মধ্যেই তাঁর ফিডে ভুয়া খবর, ভয় জাগানোর মতো ছবি, শিরশ্ছেদ, বানানো ছবিতে ভর্তি হয়ে গিয়েছে।

'মেরুকরণ, জাতীয়তাবাদী বার্তা সমুদ্রে ডুবে যাওয়া এক ভারতীয় টেস্ট ইউজার' নামে ৪৬ পৃষ্ঠার এই রিপোর্ট ফাঁস হয়েছে। কোম্পানির গবেষক জানিয়েছেন, এই নিউজফিড দেখতে গিয়ে তিন সপ্তাহে আমি যত মৃতদেহের ছবি দেখেছি, আমার গোটা জীবনে আমি তা দেখিনি। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ জাগানো মুসলিমবিরোধী ভাষা প্রচার চালাচ্ছে আর সেটা ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানত। তা নিয়ে অভ্যন্তরীণ বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

মার্কিন সিনেটের কমিটির কাছে হজেন ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ নথিও প্রকাশ করেছেন। এরকম হাজারও পোস্ট তিনি জোগাড় করেছেন। এ রকমই এক নথিতে আরএসএস মুসলিমদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়াচ্ছে জেনেও তাদের চিহ্নিত করা হয়নি। এদের প্রচারে নজরদারি করা হয়নি।

কোনও অ্যাকাউন্ট থেকে মুসলিম বিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে। আবার কোনও অ্যাকাউন্ট থেকে লাভ জিহাদের ভুয়ো তথ্য প্রচার করা চলছে। এমনকী ভারত থেকে মুসলিমদের তাড়িয়ে দেওয়ার প্রচার করছে। ফেসবুক কোন কিছুই আটকায় না।

প্রসঙ্গত, সোমবার কংগ্রেস ফেসবুকের কার্যকলাপ সম্পর্কে যৌথ সংসদীয় কমিটির তদন্ত দাবি করেছে। দলের মুখপাত্র পবন খেরা বলেছেন, ঘৃণার উৎসের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ করছে না ফেসবুক। শুধু তাই নয়, জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মকে কটাক্ষ করে "ফেকবুক" বলেছে কংগ্রেস।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in