বৈষম্যমূলক প্রাইভেসি পলিসি: হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের কাছে ৭ দিনের মধ্যে জবাব চায় কেন্দ্র

কেন্দ্রের তরফে একাধিক বার বলা হয়, দেশের তথ্যপ্রযুক্তি আইন লঙ্ঘন করেছে হোয়াটসঅ্যাপ
বৈষম্যমূলক প্রাইভেসি পলিসি: হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের কাছে ৭ দিনের মধ্যে জবাব চায় কেন্দ্র

হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসি প্রত্যাহার নিয়ে বুধবার ফের একবার ফেসবুকের কাছে জানতে চেয়েছে কেন্দ্র। ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনলজি মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, হোয়াটসঅ্যাপের প্রাইভেসি পলিসি ১৫ মে-র পর লাগু হওয়ার কথা থাকলেও তা এখনও চালু হয়নি।

ভারতীয় গ্রাহকদের তথ্য সুরক্ষার স্বার্থেই হোয়াটসঅ্যাপ মূলত এই পদক্ষেপ করেছে। এর আগে হোয়াটসঅ্যাপ দাবি করেছিল, তাদের প্রাইভেসি পলিসি ১৫ মে ২০২১ থেকে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। এদিকে, কেন্দ্রের তরফে এই বিষয়ে হোয়াটসঅ্যাপকে নোটিস দিয়ে ৭ দিনের সময় দিয়েছে।

সূত্রের খবর, এই সময়ের মধ্যে যদি সন্তোষজনক উত্তর পাওয়া না যায়, তাহলে আইন অনুসারে জরুরি পদক্ষেপ করা হবে।দিল্লি আদালতে এই বিষয়ে চলতে থাকা মামলার ক্ষেত্রেও একই বিষয়ে জানিয়ে রেখেছে মন্ত্রক। ইউরোপ ও ভারতের গ্রাহকদের মধ্যে বৈষম্যমূলক আচরণ করা হচ্ছে বলে মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ভারতীয় গ্রাহকরা প্রত্যেকদিন হোয়াটসঅ্যাপের উপর কতটা নির্ভরশীল তা সংস্থা জানে। কিন্তু তারপরেও এরকম দায়িত্বজ্ঞানহীন পদক্ষেপ করে ভারতীয় গ্রাহকদের প্রতি অন্যায় করা হচ্ছে।

মন্ত্রকের তরফে হোয়াটসঅ্যাপের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলা হয় যে- ভারতে তথ্যপ্রযুক্তি আইন থাকা সত্ত্বেও নতুন প্রাইভেসি পলিসি লাগু করে অনেক আইন ভেঙেছে। দিল্লি আদালতে এই বিষয়ে শুনানি চলাকালীন কেন্দ্রের তরফে একাধিক বার বলা হয়, দেশের তথ্যপ্রযুক্তি আইন লঙ্ঘন করেছে হোয়াটসঅ্যাপ।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in