মাত্র ৪ দিনে ৭৫ কিমি রাস্তা! ‘গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস’-এ নাম তুলল ভারত

দিনরাত কাজ করে ৩৫ কিলোমিটারের কিছু বেশি এই দুই লেনের রাস্তাটির কাজ শেষ করেছেন শ্রমিকরা। যার মোট দৈর্ঘ্য প্রায় ৭৫ কিলোমিটার।
মাত্র ৪ দিনে ৭৫ কিমি রাস্তা! ‘গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস’-এ নাম তুলল ভারত
গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের সার্টিফিকেট ছবি সংগৃহীত

মাত্র সাড়ে চার দিন সময়ে ৭৫ কিমি রাস্তা তৈরি করলো ন্যাশনাল হাইওয়েস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (NHAI)। এই অসম্ভবকে সম্ভব করে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুলে ফেললো NHAI।

মহারাষ্ট্রের ওপর দিয়ে গিয়েছে ৫৩ নম্বর জাতীয় সড়ক। এই সড়কের ওপর অবস্থিত অমরাবতী ও আকোলা জেলার অন্তর্বর্তী ৭৫ কিলোমিটার সড়ক মাত্র সাড়ে চার দিনে নির্মাণ কাজ শেষ করে গিনেস রেকর্ড গড়লো NHAI সংস্থা।

জগদীশ কদম ও রাজপথ ইনফ্রাকন প্রাইভেট লিমিটেড এবং NHAI এর সম্মিলিত দায়িত্বে সাড়ে চারদিনে (প্রায় ১০৬ ঘণ্টায়) এই সড়ক তৈরির কাজ সম্পন্ন হয়। এই দলটি ৩ জুন সকাল ৭টা থেকে এই নির্মাণকাজ শুরু করেন এবং ৭ জুন প্রায় বিকেল ৫টার মধ্যে কাজ শেষ করে ফেলেন। NHAI–এর ৮০০জন শ্রমিক ও রাজপথ ইনফ্রাকনের ৭২০ জন শ্রমিক ও কিছু ভাড়াটে শ্রমিক মিলে দিনরাত কাজ করে ৩৫ কিলোমিটারের কিছু বেশি এই দুই লেনের রাস্তাটির কাজ শেষ করেন। যার মোট দৈর্ঘ্য প্রায় ৭৫ কিলোমিটার। আধুনিক নির্মাণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিটুমিনাস কংক্রিট দিয়ে এই রাস্তা তৈরি হয়েছে।

রাস্তাটির গুরুত্ব উল্লেখ করতে গিয়ে কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রী নিতীন গড়করি বলেছেন, অমরাবতী থেকে আকোলা জেলার এই সড়কটি পূর্ব ও পশ্চিম ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোগমূলক রাস্তা। যা কলকাতা, রায়পুর, নাগপুর, আকোলা, সুরাট এই শহরগুলিকে যুক্ত করে। এই রাস্তাটি তৈরি হবার ফলে ট্রাফিক যানজটমুক্ত হবে এবং যাতায়াতের সময়ও বাঁচবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০০৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি কাতারের পাবলিক ওয়ার্কস্ অথারিটি আল খোর এক্সপ্রেসওয়ের প্রায় ২৭ কিলোমিটার দীর্ঘ একটি রাস্তা ১০ দিনে তৈরি করে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েছিল। এবার সেই রেকর্ড ভেঙে ৪ দিনে ৭৫ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করে ফেলল NHAI।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গড়করি এই প্রসঙ্গে ট্যুইট-এ একটি ভিডিওবার্তা পোস্ট করে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, সারা দেশের জন্য এটি একটি গর্বের খবর। NHAI-এর পুরো টিম, রাজপথ ইনফ্রাকন ও জগদীশ কদমকে এই বিশ্বরেকর্ডের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনি। এই প্রকল্পে নিযুক্ত সমস্ত শ্রমিক ও ইঞ্জিনিয়ারদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন। প্রকল্পের সাথে যুক্ত সকলের দিনরাত নিরলস পরিশ্রমের ফলে এই অভূতপূর্ব রেকর্ড তৈরি হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন নীতিন গড়করি।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in