West Bengal: পুজোর পরেই রাজ্যে খুলতে পারে স্কুল, বিদ্যালয় সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্দ
ছবি প্রতীকীফাইল ছবি সংগৃহীত

West Bengal: পুজোর পরেই রাজ্যে খুলতে পারে স্কুল, বিদ্যালয় সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্দ

পশ্চিমবঙ্গের অর্থ বিভাগ রাজ্যের ৬,৪৬৮টি রাজ্য সরকার পোষিত বিদ্যালয়ের সংস্কারের জন্য শিক্ষা বিভাগকে ১০৯ কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে। যা রাজ্যে দুর্গাপুজোর পর স্কুল খোলার ইঙ্গিত বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পশ্চিমবঙ্গের অর্থ বিভাগ রাজ্যের ৬,৪৬৮টি রাজ্য সরকার পোষিত বিদ্যালয়ের সংস্কারের জন্য শিক্ষা বিভাগকে ১০৯ কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে। যা রাজ্যে দুর্গাপুজোর পর স্কুল খোলার ইঙ্গিত দিচ্ছে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

যদিও এখনও পর্যন্ত বিজ্ঞপ্তিতে স্কুলগুলি পুনরায় খোলার বিষয়ে কিছু উল্লেখ করা হয়নি তবে এই ঘটনাকে রাজ্যে পুজোর পরেই স্কুল খোলার আরও এক ধাপ এগিয়ে গেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

রাজ্য শিক্ষা দপ্তরের এক আধিকারিকের বক্তব্য অনুসারে "স্কুল খোলা সহ অন্যান্য বিষয়গুলির সাপেক্ষে কিন্তু এখন পর্যন্ত রাজ্যে করোনার তৃতীয় ঢেউ তেমন প্রভাব ফেলতে পারেনি এবং সেক্ষেত্রে যদি স্কুল খুলতে হয় তাহলে আমাদের স্কুলের ভবনগুলো প্রস্তুত রাখতে হবে। এক বছর নয় মাস স্কুলগুলিতে কোনও কার্যকলাপ হয়নি। স্বাভাবিকভাবেই বিদ্যালয় কক্ষগুলোর অবস্থা খুবই খারাপ।

চলতি বছরের ৫ আগস্ট বিশ্বব্যাপী উপদেষ্টা সংস্থার সঙ্গে বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে তার সরকার করোনাভাইরাস (কোভিড -১৯) মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউ-এর কারণে মার্চ থেকে বন্ধ থাকা স্কুল-কলেজ পুনরায় চালু করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছেনা।

তিনি আরও বলেছিলেন যে নভেম্বর মাসে দুর্গাপূজার ছুটির পর বিকল্প দিনে পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি পুনরায় চালু হতে পারে।

যদিও শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা ইঙ্গিত দিয়েছেন যে স্কুলগুলি পুরোপুরিভাবে এখনই খুলতে পারে না।

এক আধিকারিক জানিয়েছেন, "কোনো বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে। যেমন শিক্ষার্থীদের দুটি গ্রুপে বিভক্ত করা যেতে পারে এবং এক একটি গ্রুপকে সপ্তাহে তিন দিন স্কুলে যেতে বলা হবে। একটি নির্দিষ্ট শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কমানো হবে। যাতে নিরাপদ দূরত্ব বজায় থাকে। শিক্ষাবিভাগ বর্তমানে এই পদ্ধতিগুলি নিয়ে কাজ করছে।"

ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রাজ্যে স্কুল খুলতে শুরু করেছে। ত্রিপুরায় স্কুল খুলেছে এবং মহারাষ্ট্র সরকার সোমবার থেকে স্কুল চালু করেছে। কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্য সরকারগুলিকে স্কুল খোলার কথা ভাবতে বলেছে এবং জানিয়েছেন যদি সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার মনে করে যে মহামারী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে তাহলে স্কুল খোলা যেতে পারে। তাই অন্যান্য রাজ্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারও স্কুল খোলার কথা ভাবছে।

- With Agency Inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.