West Bengal: রাজ্যে আসন্ন উপনির্বাচনে চার আসনেই প্রার্থী দেবে কংগ্রেস

রাজ্যের চার আসনের আসন্ন উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে কংগ্রেস। আগামী ৩০ অক্টোবর এই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ৩০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ভবানীপুর উপনির্বাচনে প্রার্থী দেয়নি কংগ্রেস।
West Bengal: রাজ্যে আসন্ন উপনির্বাচনে চার আসনেই প্রার্থী দেবে কংগ্রেস
ছবি প্রতীকীগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

রাজ্যের চার আসনের আসন্ন উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে কংগ্রেস। আগামী ৩০ অক্টোবর এই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রাজ্যে গত ৩০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ভবানীপুর কেন্দ্রের উপনির্বাচনে প্রার্থী দেয়নি কংগ্রেস। এছাড়াও জঙ্গীপুর কেন্দ্রেও কংগ্রেস প্রার্থী ছিলোনা। আগামী ৩০ অক্টোবর যে চার কেন্দ্রে ভোট হবে সেগুলি হল দিনহাটা (কোচবিহার), শান্তিপুর (নদীয়া), খড়দহ (উত্তর ২৪ পরগনা) এবং গোসাবা (দক্ষিণ ২৪ পরগনা)।

বুধবার রাজ্যের উপনির্বাচন নিয়ে দিল্লিতে বৈঠকে বসে কংগ্রেস। এই বৈঠক থেকেই উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস নেতৃত্বের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন এআইসিসি সদস্যরা। জানা গেছে ৮ অক্টোবর মনোনয়ন জমা দেবার শেষ দিনের আগেই প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে।

কংগ্রেস সূত্রের খবর অনুসারে, তৃণমূল যেভাবে রাজ্যে রাজ্যে কংগ্রেস ভাঙাচ্ছে তাতে দলীয় নেতৃত্ব উদ্বিগ্ন। ইতিমধ্যেই কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন সুস্মিতা দেব এবং গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনহো ফালেরিও।

দিনহাটার বিধায়ক নিশীথ প্রামানিক এবং শান্তিপুরের বিধায়ক জগন্নাথ সরকার ইস্তফা দেওয়ায় এই দুই আসনে উপনির্বাচন হচ্ছে। এই দুই বিধায়ক বিজেপির সাংসদও। খড়দহ এবং গোসাবাও দুই তৃণমূল বিধায়কের মৃত্যুতে এই দুই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

রাজ্যের সাম্প্রতিক তিন আসনের নির্বাচনে তিনটিতেই জয়ী হয়েছে তৃণমূল। একমাত্র সামশেরগঞ্জে কংগ্রেস প্রার্থী দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে শেষ করে। ভবানীপুর এবং জঙ্গীপুরে কংগ্রেসের প্রার্থী ছিলোনা।

উল্লেখ্য এই চার আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য এর আগেই বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে। যার মধ্যে দিনহাটা কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ফরোয়ার্ড ব্লকের আব্দুর রউফ, শান্তিপুরে সিপিআই-এম-এর সৌমেন মাহাতো, খড়দহে সিপিআই(এম)-এর দেবজ্যোতি দাস এবং গোসাবায় আরএসপি প্রার্থী অনিল চন্দ্র মন্ডল।

শেষ বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বাম, কংগ্রেস এবং আইএসএফ একসঙ্গে আসন সমঝোতা করে সংযুক্ত মোর্চা নাম নিয়ে নির্বাচনে লড়াই করেছিলো। যদিও নির্বাচন পরবর্তী সময়ে এক সাংবাদিক বৈঠকে সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি জানান বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে সমঝোতা হয়েছিলো।

- with Agency Inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in