'রাজনৈতিক প্রভুদের খুশি করতেই নেহেরুর ছবি বাদ' - মমতার ইতিহাস জ্ঞান নিয়ে কটাক্ষ কংগ্রেসের

তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে দেওয়া পোস্টারে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর ছবি নেই। তৃণমূলের এই কার্যকলাপকে 'উদ্দেশ্যমূলক' বলে অভিহিত করেছে প্রদেশ কংগ্রেস।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পোস্ট করা ছবি
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পোস্ট করা ছবি

তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে দেওয়া পোস্টারে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর (Jawaharlal Nehru) ছবি নেই। তৃণমূলের এই কার্যকলাপকে 'উদ্দেশ্যমূলক' বলে অভিহিত করে এর সমালোচনা করেছে প্রদেশ কংগ্রেস।

মঙ্গলবার, প্রদেশ কংগ্রেসের তরফে এক টুইট বার্তায় বলা হয়েছে, 'প্রথম প্রধানমন্ত্রী #জওহরলাল_নেহরুকে স্বাধীনতা দিবসের পোস্টার থেকে বাদ দিয়েছে তৃণমূল। রাজনীতির প্রভুদের খুশি করতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে এটা করা হয়েছে।'

একই টুইটে, এক বাচ্চার হাতে আঁকা লালকেল্লায় ভাষণরত নেহেরুর ছবি তুলে ধরা হয়েছে। সঙ্গে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দিয়ে লেখা হয়েছে - 'বাচ্চাদের কাছ থেকে শিখতে পারেন ইতিহাস @মমতা এবং @তৃণমূল কংগ্রেস।'

দেশের স্বধীনতার ৭৫ তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ৩০ জন স্বাধীনতা সংগ্রামীর ছবি দিয়ে একটি পোস্টার প্রকাশ করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রোফাইল পিকচার (DP) হিসাবে নিজের ট্যুইটারে সেই পোস্টার দেন তিনি। তাঁকে অনুকরণ করে নিজেদের ফেসবুক (Facebook), হোয়াটসঅ্যাপ (WhatsApp) এবং ট্যুইটারে (Twitter) এটি পোস্ট করেন তৃণমূলের অন্য নেতা-নেত্রীরাও।

কিন্তু দেখা যায় এই পোস্টার থেকে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু (Jawaharlal Nehru)-কে বাদ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, মমতার তালিকায় ঠাঁই পান নি দেশের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী মৌলানা আবুল কালাম আজাদও।

মমতার নজরে ৩০ জন স্বাধীনতা সংগ্রামীর তালিকায় নেই খান আবদুল গফফার খান, আশফাকুল্লা খান, বরকাতুল্লা ভোপালি, ভারতের প্রথম পূর্ণ স্বাধীনতার দাবি করা হাসরাত মোহানি। এমনকি, সিধু কানহুকেও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তবে মমতার স্বাধীনতা সংগ্রামীর তালিকায় জওহরলাল নেহরু না থাকলেও, জায়গা পান দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রী।

১৪ আগস্ট, স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রকাশিত প্রথম ছবি সামনে আসার পরেই বিতর্ক বাঁধে। কেননা, এই ছবিতে ছিলেন না - কাজী নজরুল ইসলাম, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, স্বামী বিবেকানন্দ, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর।

বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠায়, বাধ্য হয়ে বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ছবি তালিকায় সংযোজন করেন মমতা। কিন্তু, তারপরেও দেখা যায় - বাদ পড়েছেন জওহরলাল নেহরু, আবুল কালাম আজাদ।

এ নিয়ে বিজেপি এবং তৃণমূলকে একসঙ্গে খোঁচা দেন পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের মুখপাত্র অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘@BJP4India @AITCofficial এর জন্য ইতিহাসপাঠ। আজ মধ্যরাত্রে যখন সারা পৃথিবী নিদ্রামগ্ন তখন ভারতবর্ষ এবং ভারতবাসী জেগে উঠবে এক নতুন স্বাধীনতার মন্ত্রে এবং জীবনীশক্তিতে। জহরলাল নেহরুর হাতে স্বাধীনতার জন্মলগ্ন।‘

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in