বাংলায় উত্তরপ্রদেশ বা বিহার মডেল চলবে না, বিজেপি নেতৃত্বের উপর ক্ষুব্ধ রূপা ভট্টাচার্য
ছবি- অফিসিয়াল পেজ

বাংলায় উত্তরপ্রদেশ বা বিহার মডেল চলবে না, বিজেপি নেতৃত্বের উপর ক্ষুব্ধ রূপা ভট্টাচার্য

দলীয় নীতি যে অনেকেরই পছন্দ নয়, তা প্রকাশ্যে চলে এসেছে। ক'দিন আগে মুখ খুলেছিলেন তথাগত রায়। তাঁর বক্তব্য ছিল, সেলিব্রিটি অভিনেত্রীদের কেন দলে নিয়ে প্রার্থী করা হয়েছিল?

বাংলার জন্য উত্তরপ্রদেশ বা বিহারের মডেল চলবে না। আত্মসমালোচনা করে নতুন করে শুরু করা প্রয়োজন। দলীয় নীতি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে এভাবে নিজের বক্তব্য স্পষ্ট করলেন অভিনয় থেকে রাজনীতির জগতে পা রাখা রূপা ভট্টাচার্য। ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর দেখা গেল, তিন সংখ্যার আসন দখল করতে করতে পারেনি বিজেপি। তারপর থেকেই দলের অভ্যন্তরে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

দলীয় নীতি যে অনেকেরই পছন্দ নয়, তা প্রকাশ্যে চলে এসেছে। ক'দিন আগে মুখ খুলেছিলেন তথাগত রায়। তাঁর বক্তব্য ছিল, সেলিব্রিটি অভিনেত্রীদের কেন দলে নিয়ে প্রার্থী করা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব আর রাজ্য নেতৃত্বকে কাঠগড়ায় তুলেছিলেন তিনি। এবার একই পথের পথিক হলেন রূপা ভট্টাচার্য।

টুইটারের স্ক্রিনশট

বৃহস্পতিবার সকালে রূপার নাম না করে ঠান্ডা ঘরে দলীয় নেতাদের অবস্থান বিক্ষোভের প্রতিবাদ করে লেখেন, ‘বর্গী এল দেশে। বুলবুলিরা ধান খেয়ে চলে গেল। তার খাজনা এখন কর্মীরা দিচ্ছে।‘ তাঁর সংযোজন, ‘ঠান্ডা ঘরে রাজ্য নেতারা ধরনা দিচ্ছেন। যাঁদের আশেপাশে এত সিকিওরিটি তাঁরা কেন ঘরে? পদাধিকারী? এমপি, এমএলএ? আর কোথায় দলে থেকে মানুষের জন্য কাজ করতে না পারা হেরো প্রার্থীরা।‘

টুইটারের স্ক্রিনশট

হুঁশিয়ারির সুর তাঁর লেখায়, ‘ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে এবার বুঝে নেবে কর্মীরা।‘ দলের কাছে নিজের অবস্থান প্রসঙ্গে আরও একটা টুইট লেখেন রূপা, ‘বাংলার জন্য সংগঠিত রাজনৈতিক কৌশল প্রয়োজন। ইউপি, বিহার মডেল এখানে চলবে না। আত্মসমালোচনা করে ত্রুটি সংশোধন করে নতুন করে শুরু করতে হবে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in