অনুব্রত-পার্থর দেখানো পথেই সওকত মোল্লা, কয়লা পাচার কান্ডে CBI দপ্তরে হাজিরা এড়ালেন তৃণমূল বিধায়ক
সওকত মোল্লাফাইল ছবি সংগৃহীত

অনুব্রত-পার্থর দেখানো পথেই সওকত মোল্লা, কয়লা পাচার কান্ডে CBI দপ্তরে হাজিরা এড়ালেন তৃণমূল বিধায়ক

অনেকেই এই প্রসঙ্গে কীভাবে অনুব্রত মণ্ডল রাজ্যে গবাদি পশু, ভোট পরবর্তী হিংসা এবং কয়লা চোরাচালান সংক্রান্ত মামলায় একের পর এক সিবিআই সমন এড়িয়ে গেছেন সেই বিষয়ের উল্লেখ করছেন।

অনুব্রত মণ্ডল, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দেখানো পথেই শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গে কয়লা চোরাচালানের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিবিআই-এর প্রথম নোটিশ উপেক্ষা করলেন দুইবারের তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সওকত মোল্লা। এর আগে গোরু পাচার মামলা এবং ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় সিবিআই-এর প্রথম ডাক এড়িয়েছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। একইভাবে এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রথমবার জিজ্ঞাসাবাদ এড়িয়ে যান পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ক্যানিং (পূর্ব) বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মোল্লাকে শুক্রবার সকাল ১১ টায় মধ্য কলকাতায় সিবিআই-এর নিজাম প্যালেস অফিসে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছিল। যদিও একদম শেষ মুহূর্তে, তাঁর কৌঁসুলিরা সিবিআইকে ইমেল মারফৎ জানিয়েছেন, তিনি আজকের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে পারবেন না। তিনি জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হবার জন্য ১৫ দিন সময় চেয়েছেন।

মোল্লার ইমেল কমিউনিক প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন সিবিআই আধিকারিক জানিয়েছেন, তারা অবিলম্বে নয়াদিল্লিতে সিবিআই অধিদপ্তরে তাদের উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের কাছে বিবৃতিটি পাঠিয়েছেন। "এখন মোল্লাকে ১৫ দিনের সময় দেওয়া হবে কি না তা আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সিদ্ধান্ত নেবেন", জানিয়েছেন তিনি।

অনেকেই এই প্রসঙ্গে কীভাবে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা এবং দলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল রাজ্যে গবাদি পশু, ভোট পরবর্তী হিংসা এবং কয়লা চোরাচালান সংক্রান্ত মামলায় একের পর এক সিবিআই সমন এড়িয়ে গেছেন সেই বিষয়ের উল্লেখ করছেন।

প্রসঙ্গত, সাতটি সমন উপেক্ষা করার পর, অনুব্রত মন্ডল অবশেষে ১৯ মে সিবিআই অফিস প্রথমবার জেরার জন্য উপস্থিত হন। এরপর তিনি বীরভূমে ফিরে যান এবং চিকিৎসার কথা জানিয়ে আবার কেন্দ্রীয় সংস্থার সমন এড়াতে শুরু করেন।

শুক্রবার সিবিআই-এর নিজাম প্যালেসে মণ্ডলেরও উপস্থিত থাকার কথা ছিল। তবে যথারীতি তিনি উপস্থিত থাকতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার IANS-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, যদিও রাজ্যের পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোলের কয়লা-বেল্ট কয়লা চোরাচালানের র‌্যাকেটের ঘাঁটি ছিল, তদন্তকারী কর্মকর্তারা সম্প্রতি রাজ্যের বেশ কয়েকটি পয়েন্ট চিহ্নিত করেছেন যেখানে পাচার করা কয়লা বিভিন্ন সময়ে পাঠানো হয়েছিল।

এটাও রিপোর্ট করা হয় যে, মোল্লার নির্বাচনী এলাকা, ক্যানিং (পূর্ব) এর অধীনে জীবনতলা এলাকায় বেশ কয়েকটি ইটের ভাটা রয়েছে। যেখানে উৎপাদন চালানোর জন্য সস্তায় প্রচুর পরিমাণে কয়লা প্রয়োজন। ক্যানিং (পূর্ব) অঞ্চলে এমন অনেক ইট ভাটার সন্ধান সিবিআইয়ের গোয়েন্দারা পেয়েছেন, যেখানে নিয়মিত চোরাচালান কয়লার সরবরাহ আসছিল।

মোল্লা ২০১৬ সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার ক্যানিং (পূর্ব) বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেসের দুই বারের বিধায়ক। ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গে পালা বদলের আগে, মোল্লা তৎকালীন ক্ষমতাসীন দল CPI(M) এর সক্রিয় সদস্য ছিলেন এবং পূর্ববর্তী বামফ্রন্ট শাসনকালে পশ্চিমবঙ্গের ভূমি ও ভূমি সংস্কার মন্ত্রী আবদুর রেজ্জাক মোল্লার ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

২০১১ সালের পর, সওকত মোল্লা তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন এবং ২০১৬ সালে প্রথমবারের মতো ক্যানিং পূর্ব কেন্দ্র থেকে বিধায়ক হন। ২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে তিনি একই আসন থেকে পুনরায় নির্বাচিত হন।

-With IANS Inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in