ঢেকুর তুললেই চুরি, দুর্নীতির গন্ধ বের হয় - নাম না করে শুভেন্দুকে তীব্র কটাক্ষ মীনাক্ষীর

মীনাক্ষী মুখার্জী বলেন, কোমরে কাপড় বেঁধে রুখে দাঁড়ান। চোর, লুটেরাদের ভয় পাবেন না, ওরা এঘর-ওঘর করে। কখনও তৃণমূল, কখনও বিজেপি।
জামুড়িয়ার সভায় মীনাক্ষী মুখার্জি
জামুড়িয়ার সভায় মীনাক্ষী মুখার্জি ছবি সৌজন্যে সিপিআইএম পশ্চিম বর্ধমান জেলা কমিটির ফেসবুক পেজ

কোমরে কাপড় বেঁধে রুখে দাঁড়ান। চোর লুটেরাদের ভয় পাবেন না, ওরা এঘর ওঘর করে। কখনও তৃণমূল, আবার কখনও বিজেপি। - জামুড়িয়ার সভা থেকে রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে স্পষ্ট বার্তা দিলেন ডিওয়াইএফআই রাজ্য সম্পাদক মীনাক্ষী মুখার্জী। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে নিশানা করে একের পর কটাক্ষ করলেন সিপিআই(এম) নেত্রী।

গত বুধবার পশ্চিম বর্ধমানের মোট ৪টি জায়গায় 'লুটেরা হটাও, বাংলা বাঁচাও' শপথ নিয়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সিআইটিইউ, ক্ষেতমজুর ইউনিয়ন, কৃষকসভা, মহিলা সমিতি, ছাত্র-যুব সহ বামপন্থী সংগঠনগুলি যৌথভাবে এই সমাবেশের ডাক দেয়। দুর্গাপুরের ফরিদপুর ব্লকের অন্তর্গত লাউদোহা বিডিও অফিস এবং জামুড়িয়ার বাহাদুরপুর বিডিও অফিসের সামনে বক্তব্য রাখেন মীনাক্ষী মুখার্জী। অন্যদিকে, বারাবনীর দোমহানির সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন শতরূপ ঘোষ।

সূত্রের খবর, জামুরিয়ার ১০টি গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে এদিনের সমাবেশে অসংখ্য মানুষের সমাগম হয়েছিল। সমাবেশ থেকে নাম না করেই শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করে মীনাক্ষী বলেন, নন্দীগ্রামের এক নেতা বিজেপির ঘরে গেছেন। তিনি ঢেকুর তুললে এখনও চুরি, দুর্নীতির গন্ধ বের হয়। বিজেপি দেশকে বিকিয়ে দিচ্ছে আর তৃণমূল রাজ্যের সর্বনাশ করছে। ভুয়ো জবকার্ড দেখিয়ে প্রচুর টাকার দুর্নীতি হয়েছে। গরীব মানুষ রেশন পাচ্ছে না, তাদের ঘরও দেওয়া হয়নি। কিন্তু কাটমানির ঘর হয়েছে।

তৃণমূল নেতাদের এক হাত নিয়ে সিপিআই(এম) নেত্রী আরও বলেন - শেষ ১০ বছরে গ্রামে গ্রামে অসংখ্য অনুব্রত আর পার্থ তৈরী করেছে তৃণমূল। তাই সময় এসেছে, এদের আর লুটে খেতে দেব না। যা খেয়েছো, গলায় গামছা দিয়ে আদায় করব। মানুষ ভালো নেই, পরিত্রাণ চাইছে। তাই অবিলম্বে বামপন্থীদের এগিয়ে আসতে হবে। বাংলার শিশুরা ভালো নেই, অপুষ্টিতে ভুগতে থাকা কত মায়ের বুকের দুধ শুকিয়ে গেছে। মোটা ভাত, মোটা কাপড় সেইটুকুও কেড়ে নেওয়া হয়েছে।

বেকারদের কর্মসংস্থানের প্রসঙ্গ তুলে ধরে ডিওয়াইএফআই নেত্রী জানান - রাজ্যে কারখানা নেই, তাই বেকারদের কাজও নেই। যে কয়েকটা কারখানা চালু রয়েছে, সেগুলো থেকে দিনের পর দিন তোলা আদায় করছে শাসক দলের মাতব্বররা। যারা ভুল বুঝে তৃণমূল-বিজেপিকে ভোট দিয়েছিলেন, তাদের ভুল ভাঙাতে হবে। প্রতিটি বাড়ি যেতে হবে আমাদের। সবাই মিলে একত্রে চোর, লুটেরাদের তাড়িয়ে নতুন বাংলা গড়ব।

জামুড়িয়ার সভায় মীনাক্ষী মুখার্জি
উপাচার্যের ইস্তফার দাবিতে রণক্ষেত্র বিশ্বভারতী, পড়ুয়াদের সাথে নিরাপত্তারক্ষীদের সংঘর্ষে রক্তাক্ত ২
জামুড়িয়ার সভায় মীনাক্ষী মুখার্জি
তৃণমূল শ্রমিক সংগঠন শূন্য, ইছাপুর মেটাল-স্টিল ফ্যাক্টরির ওয়ার্কার্স কমিটির নির্বাচনে জয়ী বামপন্থীরা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in