পরিবহণ দফতরে চাকরি দেওয়ার নাম করে ফের প্রতারণার অভিযোগ শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ রাখালের বিরুদ্ধে

অভিযোগ, গত বছর অক্টোবরে শুভেন্দু অধিকারী যখন রাজ্য পরিবহণ দফতরের মন্ত্রী ছিলেন, সেই সময় বাস কন্ডাক্টরের চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ রাখাল বেরা ও চঞ্চল নন্দী টাকা হাতিয়ে নেয়।
পরিবহণ দফতরে চাকরি দেওয়ার নাম করে ফের প্রতারণার অভিযোগ শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ রাখালের বিরুদ্ধে
শুভেন্ধু অধিকারী, রাখাল বেরা ফাইল চিত্র- সংগৃহীত

পরিবহণ দফতরে চাকরি দেওয়ার নামে ফের টাকা নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ রাখাল বেরাকে গ্রেফতার করে নিজেদের হেফাজতে নিল কাঁথি থানার পুলিশ। গত ৯ জুন কাঁথি থানায় এই বিষয়ে অভিযোগ করেন পূর্ব মেদিনীপুরের ইঞ্চির বাসিন্দা প্রতারিত মিজানুর আলি।

তাঁর দাবি, গত বছর অক্টোবরে শুভেন্দু অধিকারী যখন রাজ্য পরিবহণ দফতরের মন্ত্রী ছিলেন, সেই সময় বাস কন্ডাক্টরের চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ রাখাল বেরা ও চঞ্চল নন্দী টাকা হাতিয়ে নেয়। প্রথমে ১০ লক্ষ টাকা দিতে বলে। পরে মোট ৬ লক্ষ টাকা কাঁথি পুরসভার অফিসে চঞ্চল নন্দীর হাতে তুলে দেন বলে দাবি করেন মিজানুর। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তের স্বার্থে বৃহস্পতিবার কাঁথি মহকুমা আদালতের বিচারক অভিযুক্ত রাখাল বেরার ৫ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

এদিকে গত নভেম্বরে মন্ত্রিত্ব ছাড়েন শুভেন্দু। ফলে চাকরির ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মিজানুর। অভিযুক্তরা আশ্বাস দেয় যে, ভোটের পর শুভেন্দু মুখ্যমন্ত্রী হলে ভালো চাকরি দেওয়া হবে। তবে নির্বাচনে শুভেন্দুর দল হেরে গেলে টাকা ফেরত চায় মিজানুর। কিন্তু সেই টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করে চঞ্চল। এরপরই কাঁথি থানায় অভিযোগ জানান মিজানুর।

তবে চঞ্চল এখনও পলাতক। তার খোঁজে তদন্ত চলছে। এর আগে সেচ দফতরে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছিল রাখালের বিরুদ্ধে। যদিও সেই সময় শুভেন্দু বলেছিলেন, 'ওর সঙ্গে যে আমার ঘনিষ্ঠতা আছে, সেই বিষয়ে কোনও প্রমাণ আছে? এই বিষয়ে আমার কোনও বক্তব্য নেই'।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in