পুজো উদ্যোক্তারা বিপুল বাজেটের একটি অংশ বন্যা দুর্গতদের জন্য খরচ করুন, বিমান বসুর আবেদন

তিনি বলেন - রাজ্যে এবার বন্যা পরিস্থিতি রয়েছে। রাজ্যের বহু এলাকা এখনও জলমগ্ন। সেখানকার মানুষের কাছে খাবার, পানীয় জল পৌঁছানো ও তাঁদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করাটা খুব বেশি দরকার।
পুজো উদ্যোক্তারা বিপুল বাজেটের একটি অংশ বন্যা দুর্গতদের জন্য খরচ করুন, বিমান বসুর আবেদন
বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুফাইল ছবি সংগৃহীত

পুজো উদ্যোক্তারা যেন বিপুল বাজেট থেকে একটি অংশ বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়ে তাঁদের প্রয়োজনে খরচ করেন। বাংলার মানুষকে শারদোৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়ে এমনই আবেদন জানালেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু এবং সিপিআইএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।

বিমানের আবেদন, বাঙালির বড় উৎসব দুর্গাপুজো। পাশাপাশি সমাজের একটা বড় অংশের মানুষ এই উৎসবের জন্যই সারা বছর অপেক্ষা করে থাকেন ভালো আয় হবে বলে। দেশ এবং রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে মানুষের মধ্যে ঐক্য, সংহতি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি গড়ে তোলা খুবই জরুরি। কোভিড অতিমারির পাশাপাশি এবার বন্যা পরিস্থিতি রয়েছে। রাজ্যের বহু এলাকা এখনও জলমগ্ন। সেখানকার মানুষের কাছে খাবার, পানীয় জল পৌঁছানো ও তাঁদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করাটা খুব বেশি দরকার। উৎসবের দিনগুলোয় তারা যাতে অভুক্ত না থাকেন, তার ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, 'আমার মনে হয়, পুজো উদ্যোক্তাদের এই উদ্যোগ নেওয়া উচিত। আমি চাই পুজোয় খরচ থেকে কিছু অংশ বন্যা দুর্গতদের জন্য ব্যয় হোক।'

সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলেছেন, 'এ এক কঠিন সময়। করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের সম্ভাবনাও পুরোপুরি চলে যায়নি। রাজ্যের আটটি জেলায় বন্যা পরিস্থিতি রয়েছে এখনও। নদীভাঙন অব্যাহত। বাসন্তীতে বাঁধ ভেঙেছে। এই পরিস্থিতিতে শারদোৎসব আয়োজিত হচ্ছে।'

তাঁর বার্তা, গোটা দেশের মতো এই রাজ্যেও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা একটা চ্যালেঞ্জ। মানুষের জীবন-জীবিকা রক্ষার পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করতে হবে। একইসঙ্গে করোনা বিধি-নিষেধ কড়াভাবে মানতে হবে। দুর্ভাগ্যের বিষয়, সরকারের এই বিষয়ে যে ভূমিকা হওয়া উচিত ছিল, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।'

শারদোৎসব উপলক্ষে বাম সাহিত্য পত্রিকা প্রকাশ হচ্ছে। নন্দন, গণশক্তির শারদ সংখ্যা, যুবশক্তি, শারদ ছাত্র সংগ্রাম প্রকাশিত হয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.