'স্বাধীনতার পর নরেন্দ্র মোদি সরকারই সবথেকে বড় বিশ্বাসঘাতক সরকার' - হান্নান মোল্লা

কলকাতা এবং নন্দীগ্রামে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা আয়োজিত কিষাণ-মজদুর মহাপঞ্চায়েত থেকে বাংলার জনগণের কাছে বিজেপিকে একটিও ভোট না দেওয়ার অনুরোধ জানালেন রাকেশ টিকায়েত।
'স্বাধীনতার পর নরেন্দ্র মোদি সরকারই সবথেকে বড় বিশ্বাসঘাতক সরকার' - হান্নান মোল্লা
কলকাতায় সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার মহাপঞ্চায়েতনীল কমলের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাংলায় এসে বিজেপি-বিরোধী প্রচার শুরু করে দিলেন ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের নেতা রাকেশ টিকায়েত। কলকাতা এবং নন্দীগ্রামে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা আয়োজিত কিষাণ-মজদুর মহাপঞ্চায়েত থেকে বাংলার জনগণের কাছে বিজেপিকে একটিও ভোট না দেওয়ার অনুরোধ জানালেন তিনি। তাঁর স্পষ্ট কথা, যাকে খুশি ভোট দিন,‌ কিন্তু বিজেপিকে একটিও ভোট দেবেন না।" আগামীকাল সিঙ্গুরে মহাপঞ্চায়েত করবে কৃষক নেতারা।

নিজের বক্তৃতার প্রতিটি লাইনে কড়া ভাষায় বিজেপিকে আক্রমণ শানিয়েছেন তিন কৃষি আইনের বিরুদ্ধে দিল্লিতে হওয়া কৃষক আন্দোলনের অন্যতম প্রধান মুখ রাকেশ টিকায়েত। নির্বাচনের আগে বিজেপির একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা বঙ্গ সফরে আসছেন এবং বিভিন্ন ব‍্যক্তির বাড়িতে মধ‍্যাহ্নভোজ সারছেন‌। এই প্রসঙ্গে টেনে তাঁর কটাক্ষ, "শুনছি, দিল্লির নেতারা পশ্চিমবঙ্গে আসছেন, থাকছেন। আমরাও তাই দিল্লি থেকে তাঁদের এখানে খুঁজতে এসেছি। ভোটের সময় ওঁরা যদি কেউ আপনাদের বাড়ি গিয়ে ভাত খান, তাহলে ভাত দেওয়ার পাশাপাশি ওঁদের জিজ্ঞেস করবেন, ধানের ন‍্যূনতম সহায়ক মূল্যের কী হল? তিনটি কৃষি আইন কবে বাতিল করা হবে?"

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের কৃষকরাও যাতে বিজেপিকে ভোট না দেয়, সেজন্য একটি রাজ্যের কৃষকদের উদ্দেশ্যে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার শীর্ষ নেতৃত্ব। গতকালই কলকাতা প্রেস ক্লাবে এই চিঠি প্রকাশ করেছেন মোর্চা নেতৃত্ব। এই চিঠিগুলো কৃষক দূতদের মাধ্যমে রাজ্যের ২৯৪টি আসনের কৃষকদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে। গতকালের এই চিঠি প্রকাশ অনুষ্ঠানে অল ইন্ডিয়া কিষান সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা কেন্দ্র সরকারের সমালোচনা করে বলেন, স্বাধীনতার পর নরেন্দ্র মোদি সরকারই সবথেকে বড় বিশ্বাসঘাতক সরকার।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in