Nandigram: ১৪ বছর পর নন্দীগ্রামের মাটিতে DYFI সম্মেলন - লাগাতার আন্দোলনের সাফল্য - মত নেতৃত্বের

বিজেপির দাবি, শাসকদলের মদতেই নন্দীগ্রামে ফের শক্তিশালী হচ্ছে বামেরা। তৃণমূলের দাবি, বাম-বিজেপি সমঝোতা করেছে। CPIM নেতা পরিতোষ পট্টনায়ক বলেন, আসল সমঝোতা রয়েছে তৃণমূল-বিজেপির মধ্যেই।
Nandigram: ১৪ বছর পর নন্দীগ্রামের মাটিতে DYFI সম্মেলন - লাগাতার আন্দোলনের সাফল্য - মত নেতৃত্বের
নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকে DYFI সম্মেলনে প্রতিনিধিবৃন্দনিজস্ব চিত্র

দীর্ঘ ১৪ বছর পর সন্ত্রাস কবলিত নন্দীগ্রামের মাটিতে সম্মেলন করলো CPIM-এর যুব সংগঠন DYFI। ২০০৭ সালের পর যেখান থেকে বামেরা প্রায় মুছে গিয়েছিল, যেখানে চলতি বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার চলাকালীন একাধিকবার বাধার সম্মুখীন হয়েছেন সংযুক্ত মোর্চা সমর্থিত সিপিআইএম প্রার্থী, সেই নন্দীগ্রাম এক নম্বর ব্লকে ডিওয়াইএফআই-এর গতকালের এই সম্মেলন রাজনৈতিক মহলে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে‌।

২০০৭ সালে জমি আন্দোলনের পর নন্দীগ্রাম এক নম্বর ব্লকে কোনো সম্মেলন করতে পারেনি ডিওয়াইএফআই। সন্ত্রাসের কারণে লোকাল কমিটির সম্মেলনও নিজেদের এলাকায় না করে অন‍্যত্র করতেন DYFI সদস্যরা। ২০১৭ সালে নন্দীগ্রাম এক নম্বর লোকাল কমিটির শেষ যে সম্মেলন হয়েছিল, সেটাও নন্দীগ্রামের বাইরে রেয়াপাড়াতে করা হয়েছিল। ১৪ পর গতকাল এই প্রথম নিজেদের এলাকায় সম্মেলন করলেন DYFI নন্দীগ্রাম এক নম্বর লোকাল কমিটির সদস্যরা।

এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডিওয়াইএফআই পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সম্পাদক পরিতোষ পট্টনায়ক, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য সুদর্শন সামন্ত, দায়িত্বপ্রাপ্ত সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য মণিরুল ইসলাম সহ অনেকে।

সম্মেলন প্রসঙ্গে পিপলস রিপোর্টারের প্রতিনিধিকে পরিতোষ পট্টনায়ক জানিয়েছেন, গতকালের সম্মেলন সফল হয়েছে। সম্মেলনে যুবদের উপস্থিতি প্রত‍্যাশার বাইরে ছিল। যুবরা নিজেরা উপলব্ধি করতে পেরেছে শিল্পায়ন, কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি নিয়ে তাদের সাথে প্রতারণা করা হয়েছে। তারা বুঝেছে তাদের জন্য কেউ যদি লড়ে সেটা শুধু ডিওয়াইএফআই। যুবরা নতুন করে একত্রিত হচ্ছে, শক্তি বৃদ্ধি করছে।

নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকে DYFI সম্মেলনে প্রতিনিধিবৃন্দ
নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকে DYFI সম্মেলনে প্রতিনিধিবৃন্দছবি নিজস্ব

তিনি আরো জানিয়েছেন, গত কয়েকবছর ধরেই নন্দীগ্রামে নিজেদের মাটি শক্ত করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ডিওয়াইএফআই। এই সম্মেলনের আগে এলাকাভিত্তিক একাধিক সভা করেছে তারা। কর্মীরা আক্রান্ত হলেও কর্মসূচি চালিয়ে গেছেন তাঁরা। এই সবেরই সাফল্য পাওয়া গেছে গতকালের সম্মেলনে।

ডিওয়াইএফআই-এর সম্মেলন ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। বিজেপির দাবি, শাসকদলের মদতেই নন্দীগ্রামে ফের শক্তিশালী হচ্ছে বামেরা। বিজেপিকে ঠেকাতে বামেদের সাথে হাত মিলিয়েছে তৃণমূল। অপরদিকে, তৃণমূলের দাবি, বাম-বিজেপি সমঝোতা করেছে। বামেরাই সময়ে সময়ে রামের ঝান্ডা ধরে আবার কখনো বামপন্থী সাজে।

এই দাবি-পাল্টা দাবি প্রসঙ্গে পরিতোষ পট্টনায়ক বলেন, আসল সমঝোতা রয়েছে তৃণমূল-বিজেপির মধ্যেই। প্রকাশ‍্যে বামেদের ওপর সেটা চাপাতে চাইছে দুই দল।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in