ISF প্রসঙ্গে আমার বক্তব্য বিকৃত করা হচ্ছে - অশোক ভট্টাচার্য

শিলিগুড়ি পুরসভার মুখ্য প্রশাসকের পদ থেকে সরানো হল অশোক ভট্টাচার্যকে। যে প্রসঙ্গে তিনি জানান – রাজ্য নগরোন্নয়ন দপ্তরের নির্দেশনামা থেকে জানলাম শিলিগুড়ি পৌর কর্পোরেশনে নতুন প্রশাসনিক মণ্ডলী বসানো হয়েছে
ISF প্রসঙ্গে আমার বক্তব্য বিকৃত করা হচ্ছে - অশোক ভট্টাচার্য
অশোক ভট্টাচার্যফাইল ছবি সংগৃহীত

আইএসএফ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য বিকৃত করে প্রচার করছে কোনো একটি চ্যানেল। যা নিয়ে নিজের ফেসবুক ওয়ালে প্রতিবাদ জানালেন সিপিআই(এম) নেতা অশোক ভট্টাচার্য। নিজের ফেসবুক পোষ্টে তিনি লেখেন – “কোনো একটি চ্যানেলে আমি আইএসএফ নিয়ে যা বলেছি, সেটাকে বিকৃত করে প্রচার হছে। আইএসএফ নিয়ে আমি বলেছি এই নির্বাচনে আমাদের বিপর্যয় হয়েছে। এর কারণ পর্যালোচনার পরেই জানা যাবে। এক তরফা ভাবে আইএসএফ দায়ী এখনই আমি কী ভাবে বলবো। অপেক্ষা করুন সব জানতে পারবেন।”

উল্লেখ্য এদিনই শিলিগুড়ি পুরসভার মুখ্য প্রশাসকের পদ থেকে অশোক ভট্টাচার্যকে সরিয়ে পরাজিত তৃণমূল প্রার্থী গৌতম দেবকে বসানো হয়েছে। যে প্রসঙ্গে অশোক ভট্টাচার্য জানান – “রাজ্য সরকারের নগরোন্নয়ন দপ্তরের একটি নির্দেশনামা থেকে জানলাম শিলিগুড়ি পৌর কর্পোরেশনএ নতুন একটি প্রশাসনিক মণ্ডলীকে বসানো হয়েছে। যার চেয়ারম্যান হয়েছেন সদ্য প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম দেব। আমি তাঁর সাফল্য কামনা করছি। এই বিপদের সময় তাঁকে দয়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে। এ কথা ঠিক রাজ্যের অন্যান্য পুরসভাগুলিতে যে যুক্তিতে এই ধরনের প্রশাসক মণ্ডলী বসানো হয়েছে, শিলিগুড়ির ক্ষেত্রে সেই যুক্তি মেনে চলা হয়নি। এটা অনৈতিক।

তিনি আরও লেখেন - যেহেতু আমি ছিলাম পূর্বতন মেয়র ও প্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান, সেক্ষেত্রে আমার কোনো মতামতও চাওয়া হয়নি। যদিও আমি আগেই বলেছি বিগত বিধানসভা নির্বাচনে মানুষ আমার প্রতি আস্থা রাখতে পারেনি, আমি পরাজিত হয়েছি, তাই আমি জানিয়ে দিয়েছিলাম আমি অনিছুক, এই পদ গ্রহণ করতে। কিন্তু আমার সময়ের বোর্ডে আরো কয়েকজন ছিলেন। কোন যুক্তিতে তাদের বাদ দিয়ে এমন কয়েক জনকে প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য করা হয়েছে যাদের সাথে এই পুরসভার কোন সম্পর্কই নেই। যা হলো তা আইন সঙ্গত হতে পারে, তবে তা অযৌক্তিক ও অনৈতিক। এই শহরের একজন নাগরিক হিসেবে আমার এই মত।”

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in