পুলিশ-প্রশাসনকে কাটমানি দিতে হয় - প্রকাশ্য মন্তব্যের জেরে বড়ঞা থানার ওসিকে শোকজ

ভিডিওতে দেখা গেছে ওসি সন্দীপ সেন যখন এই মন্তব্য করছেন সেই সময় বড়ঞার বিধায়ক জীবানকৃষ্ণ সাহা তাঁর পাশে বসে রয়েছেন। ওসির মন্তব্য ভালোভাবে নেননি বিধায়ক।
বড়ঞা থানার ওসিকে শোকজ
বড়ঞা থানার ওসিকে শোকজগ্রাফিক্স - নিজস্ব

ঠিকাদারির কাজে পুলিশ ও প্রশাসনকে কাটমানি দিতে হয়। প্রকাশ্যেই এই মন্তব্য করেছিলেন  মুর্শিদাবাদের বড়ঞা থানার ওসি সন্দীপ সেন। বৃহস্পতিবার রাতে শোকজ নোটিশ পাঠানো হলো ওই ওসিকে।

বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে বড়ঞা থানার ওসিকে বলতে দেখা গেছে, "বড়ঞা থানার সাহোড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় রাস্তা তৈরি করার জন্য ৪০ শতাংশ কম দর দিয়ে টেন্ডার পেয়েছিলেন স্থানীয় এক কন্ট্রাক্টর। সেই কন্ট্রাক্টর নিজে ২০ পার্সেন্ট খাচ্ছে। হলো কতো ৬০। ব্লক অফিসে ৪ পার্সেন্ট দিয়েছে। হলো কতো ৬৪। আগের ওসিদের ৫ পার্সেন্ট দিতে হতো। হলো ৬৯। আর খেঁকশিয়ালের বাচ্চাদেরকে আরও প্রায় ৫ শতাংশ টাকা দিতে হয়েছে। সব মিলিয়ে প্রায় ৭৫ পার্সেন্ট। মাত্র ২৫ শতাংশ টাকায় কী কাজ হবে আপনারাই বিচার করুন।’’ (এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করেনি পিপলস্ রিপোর্টার)।

 ভিডিওতে দেখা গেছে ওসি সন্দীপ সেন যখন এই মন্তব্য করছেন সেই সময় বড়ঞার বিধায়ক জীবনকৃষ্ণ সাহা তাঁর পাশে বসে রয়েছেন। ওসি আরও দাবি করেন যে তিনি থানার দায়িত্ব নেওয়ার পর এই কাটমানি নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। এখন থেকে গ্রামবাসীদের কাজ বুঝে নিতেও বলেন তিনি।

এই ভিডিওর জেরে ওসি সন্দীপ সেনকে শোকজ নোটিশ পাঠিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার কে শবরী রাজকুমার। প্রকাশ্যে কেন নিজের সহকর্মীকে নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন সন্দীপ সেন, নোটিশে তা জানতে চাওয়া হয়েছে।

ভিডিওকে ঘিরে রাজ্যের রাজনীতিতে তীব্র বিতর্কও শুরু হয়েছে। ভিডিওকে হাতিয়ার করে শাসক দলের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন বিরোধীরা। বহরমপুরের সাংসদ তথা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন, 'জ্ঞানে হোক বা অজ্ঞানে, বড়ঞা থানার ওসি সত্যি বলে দিয়েছেন। কাটমানি আর দুর্নীতিতে আকণ্ঠ ডুবে রয়েছে এই সরকার।'

সিপিআইএম সাংসদ বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, "এই রাজ্যে যাঁরা দুর্নীতি করবে, তাঁদের প্রটেকশন দেবে পুলিশ। আর জন্য দুর্নীতির প্রতিবাদ করবে তাঁদের শোকজ করা হবে।"

অন্যদিকে কান্দির তৃণমূল বিধায়ক অপূর্ব সরকার হুঁশিয়ারির সুরে বলেন, ওসি যে কাটমানি নেওয়ার কথা বলছেন, তাঁকে প্রমাণ দিতে হবে এর। উনি ব্লক প্রশাসনকেও হেয় করেছেন, সরকারকেও হেয় করেছেন।

এই ভিডিও নিয়ে সেভাবে কোনও মন্তব্য করতে না চাইলেও ওসির মন্তব্য ভালোভাবে নেননি বিধায়ক জীবনকৃষ্ণ সাহা। তাঁর কথায়, ওসি এই ধরনের মন্তব্য না করলেই ভালো করতেন।

তবে ওসির মন্তব্যকে সমর্থন করেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি বলেন, সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে কাজ চান, ওসি ঠিক সেই কথাই বলেছেন।

বড়ঞা থানার ওসিকে শোকজ
মৃত ব্যক্তির সাথে জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট মানিকের স্ত্রীর! সেখানে ৩ কোটি টাকা, একাধিক বিষ্ফোরক অভিযোগ ইডির

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in