কল্যাণী এইমসে নিয়োগে বেনিয়ম, CID-র হাজিরা এড়ালেন অভিযুক্ত BJP নেতা-মন্ত্রীরা

তদন্ত করতে গিয়ে সিআইডি-র আধিকারিকরা দেখেন নিয়োগে ত্রুটি রয়েছে। তাঁদেরকে বেশ কয়েকজন চাকরিপ্রার্থী অভিযোগ করেন, হাসপাতালে অনেকে প্রভাব খাটিয়ে চাকরি অর্জন করেছেন।
কল্যাণী এইমসে নিয়োগ দুর্নীতিতে অভিযুক্ত বিজেপির নেতা-মন্ত্রীরা
কল্যাণী এইমসে নিয়োগ দুর্নীতিতে অভিযুক্ত বিজেপির নেতা-মন্ত্রীরাগ্রাফিক্স - নিজস্ব

কল্যাণী এইমসে প্রায় ১০০ জনের নিয়োগে দুর্নীতি হয়েছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করল সিআইডি। তদন্তকারী আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এইমসে নিয়োগ সঠিক পদ্ধতি মেনে হয়নি। অনিয়মের জেরে যোগ্য অনেকে চাকরি থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

কল্যাণী এইমসে নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে আগেই মামলা গিয়েছিল সিআইডি-র হাতে। তদন্ত নেমে সিআইডি আধিকারিকরা দেখেন নিয়োগে ত্রুটি রয়েছে। সূত্রের খবর, বেশ কয়েকজন চাকরিপ্রার্থীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিআইডি জানতে পেরেছে, বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি প্রভাব খাটিয়ে নিজেদের আত্মীয় পরিজনকে হাসপাতালে চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন। তাঁরা এও জানান, নিয়োগ পরীক্ষার ফল কবে প্রকাশিত হল এবং কীভাবে তার তালিকা ঠিক করা হল কিছুই জানানো হয়নি তাঁদের।

গোয়েন্দা সংস্থা সূত্রে জানা যাচ্ছে, যাদের নামে অভিযোগ দায়ের হয়েছিল তাঁদের সাথে যোগাযোগ করেছিল সিআইডি। তাঁদের মধ্যে অনেকেই ব্যস্ততার কারণ দেখিয়ে হাজিরা দেননি। সিআইডি-র এক আধিকারিক জানান, প্রাথমিক তদন্তে অনেক অসংগতি মিলেছে। আরও প্রমাণ সংগ্রহের কাজ চলছে। সমস্ত প্রমাণ জোগাড় করার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জেরা করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২০ মে, সরিফুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি কল্যাণী এইমসে নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে বিজেপির নেতা-মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে কল্যাণী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। একই অভিযোগ জানিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)-কে চিঠি লিখেছিলেন নদিয়া দক্ষিণ বিজেপির সাংগঠনিক সদস্য পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chattopadhay)।

মামলাকারীর অভিযোগের তালিকায় রয়েছেন - কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী তথা বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার (Subhas Sarkar), রাণাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার (Jagannath Sarkar), চাকদহের বিজেপি বিধায়ক বঙ্কিম ঘোষ (Bankim Ghosh) এবং বাঁকুড়ার বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানা (Niladri Sekhar Dana)-সহ ৮ জন।

সরিফুলের অভিযোগের ভিত্তিতে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪২০, ৪০৬, ১২০-বি এবং ৩৪ ধারা এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের বিভিন্ন ধারায় এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। এ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছিল কল্যাণী থানা। তারপর সেই মামলায় তদন্তভার যায় সিআইডি-র হাতে।

কল্যাণীর এইমস কেন্দ্র সরকার পরিচালিত। বিজেপির বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি পার্থ চট্টোপাধ্যায় অভিযোগ করেছিলেন, 'যাঁরা এভাবে (পড়ুন - প্রভাব খাটিয়ে) চাকরি পেয়েছেন, সেই তালিকায় বাঁকুড়ার বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানার মেয়ে, নদিয়ার চাকদহের বঙ্কিম ঘোষের পুত্রবধূর নাম রয়েছে।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in