SSC-র ২২৩ জন অবৈধ শিক্ষকের সঙ্গে অনুব্রত মণ্ডলের সম্পর্ক খতিয়ে দেখছে ED

মোট ২২৩ জন অবৈধভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত বা সুপারিশকৃত শিক্ষকের নাম প্রকাশ করেছে পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশন (WBSSC)। প্রথম ধাপে ১৮৩ জন এবং দ্বিতীয় ধাপে ৪০ জন অবৈধ শিক্ষকের নাম প্রকাশ করেছে WBSSC।
অনুব্রত মণ্ডল
অনুব্রত মণ্ডলফাইল চিত্র

গরু পাচারের সঙ্গে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির কোনও যোগসূত্র আছে কিনা, তা খুঁজতে তদন্ত শুরু করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)।

ইতিমধ্যে দুই ধাপে, মোট ২২৩ জন অবৈধভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত বা সুপারিশকৃত শিক্ষকের নাম প্রকাশ করেছে পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশন (WBSSC)। প্রথম ধাপে ১৮৩ জন এবং দ্বিতীয় ধাপে ৪০ জন অবৈধ শিক্ষকের নাম প্রকাশ করেছে WBSSC।

ইডি সূত্রে খবর, খুবই সাবধানতার সাথে দুই কেলেঙ্কারিতে জড়িত ব্যক্তিদের নামের তালিকা মিলিয়ে দেখছেন ইডি অফিসারেরা। এবং এই ২২৩ জনের মধ্যে কাদের সুপারিশ এসেছে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রভাবশালী নেতা তথা বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের কাছ থেকে, সেই তথ্যও ট্র্যাক করছেন ইডি অফিসারেরা। গরু পাচার মামলায় বর্তমানে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে রয়েছেন অনুব্রত।

এক ইডি আধিকারিক জানান, ‘আমাদের অফিসারেরা মূলত দুটি সম্ভাবনার দিক খতিয়ে দেখছে। প্রথমত, স্কুলে চাকরী পাইয়ে দেওয়ার নামে সুপারিশকৃত প্রার্থীদের কাছে থেকে অনুব্রত মন্ডলসহ তাঁর সহযোগীরা আর্থিক ভাবে লাভবান হয়েছে কিনা। দ্বিতীয়ত, এই অবৈধ সুপারিশের ক্ষেত্রে প্রার্থীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা হয়েছে কিনা। কেননা, গরু পাচারের টাকা অন্যত্র সরানোর ক্ষেত্রে তৃতীয় ব্যক্তির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের অনেকগুলি রেকর্ড রয়েছে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত অক্টোবর মাস থেকে শিক্ষক নিয়োগ ও গরু পাচার নিয়ে সমান্তরালভাবে তদন্ত পরিচালনা করছে সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (CBI)। গরু পাচার মামলায় কাজল রায় ও রোহিত সিং নামে দুই ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে দুই কেলেঙ্কারির মাঝে কিছু যোগসূত্র খুঁজে পান তদন্তকারী অফিসারেরা।

ঘটনাচক্রে, কাজল রায় হলেন শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে ধৃত প্রসন্ন রায়ের স্ত্রী। যিনি আবার, রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জির ভাইঝি। আর, রোহিত সিং হলেন প্রসন্ন রায়ের নিকট আত্মীয়।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি (SSC) মামলায় সম্প্রতি প্রসন্ন রায়কে গ্রেফতার করে CBI। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে CBI জানতে পারে, SSC মামলায় অযোগ্য প্রার্থীদের যোগাযোগ এবং মিডলম্যানের ভূমিকায় ছিল প্রসন্ন রায়।

সিবিআইয়ের তরফে দাবি করা হয়, প্রসন্নর পাশাপাশি তাঁর স্ত্রী কাজলও বেশ কিছু কোম্পানিতে ডিরেক্টর ও পার্টনার ছিলেন। এবং, গরু পাচারের টাকা তাঁদের বিভিন্ন শেল কোম্পানিতে যেত।

- with IANS inputs

অনুব্রত মণ্ডল
TET Scam: মানিক ভট্টাচার্যের প্রায় ৮ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ইডির!

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in