রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের অধীনে থাকা বিশ্ববিদ্যালগুলির আচার্য পদেও মুখ্যমন্ত্রী!

আগামী ১০ জুন দুপুর ১টায় বিধানসভা অধিবেশন শুরু হতে চলেছে। অধিবেশন চলবে ১৭ জুন অবধি। সেই অধিবেশনেই মুখ্যমন্ত্রীকে আচার্য পদে বসানোর ক্ষেত্রে বিল আনার কথা চলছে।
রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের অধীনে থাকা বিশ্ববিদ্যালগুলির আচার্য পদেও মুখ্যমন্ত্রী!
ব্রাত্য বসু ও মমতা ব্যানার্জীফাইল চিত্র - সংগৃহীত

রাজ্যের সমস্ত সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদ থেকে রাজ্যপালকে সরানোর সিদ্ধান্ত আগেই নিয়েছিল রাজ্য মন্ত্রীসভা। নবান্নের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছিল এবার থেকে রাজ্যের সমস্ত সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজ্যপালের পরিবর্তে আচার্য পদে বসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। আজ সেই প্রক্রিয়া আরও একধাপ এগিয়ে গেল।

আজ সোমবার, নবান্নে মন্ত্রীসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তরের পাশাপাশি কৃষি, স্বাস্থ্য এবং প্রাণীসম্পদ দপ্তরের অধীনে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য পদে বসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। শুধুমাত্র রাজ্যের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলির পরিদর্শক হিসেবে থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী। খুব শীঘ্রই আসন্ন রাজ্য বিধানসভা অধিবেশনে সেই বিল আনা হবে বলে জানা যাচ্ছে নবান্ন সূত্রে।

তবে এই বিল রাজ্যপালের সম্মতি ছাড়া কার্যকর হবে না। রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সাথে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন বিষয়ে বচসার জেরে শিক্ষা সংক্রান্ত রাজ্যের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ দিক থেকে তাঁকে সরাতে চাইছে নবান্ন। কৃষি দপ্তরের অধীনে থাকা বিধানচন্দ্র রায় কৃষি বিদ্যালয়, সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তরের অধীনে থাকা আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, স্বাস্থ্য দপ্তরের অধীনে থাকা হেলথ সায়েন্স ইউনিভার্সিটি এই সব বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদে মুখ্যমন্ত্রীকে বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রীসভা।

আগামী ১০ জুন দুপুর ১টায় বিধানসভা অধিবেশন শুরু হতে চলেছে। অধিবেশন চলবে ১৭ জুন অবধি। সেই অধিবেশনেই মুখ্যমন্ত্রীকে আচার্য পদে বসানোর ক্ষেত্রে বিল আনার কথা চলছে। এর পাশাপাশি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটর পদ থেকে রাজ্যপালকে সরিয়ে সেই জায়গায় শিক্ষামন্ত্রীকে আনার বিল এই বিধানসভায় আনার কথা রয়েছে বলেই জানা যাচ্ছে।

সোমবার মন্ত্রীসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হওয়ার পর এই প্রসঙ্গে সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক সেলিমের বক্তব্য, আসলে এটা একটা রোগ। যে কোনও ক্ষেত্রে মমতা নিজেকে ছাড়া আর কাউকে ক্ষমতায় দেখতে চায়না। তাঁর কথায়, "ভবিষ্যতে হয়ত শিক্ষক বা অধ্যাপক পদেও শুধু নিজেকেই দেখতে চাইবেন মমতা।"

বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, এসএসসির মত রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতেও নিশ্চয়ই কোনও দুর্নীতি হয়েছে সেটা ধামাচাপা দিতেই রাজ্যপালকে রাতারাতি সরিয়ে মুখ্যমন্ত্রী নিজে দায়িত্ব নিতে চাইছেন।

ব্রাত্য বসু ও মমতা ব্যানার্জী
রাজ্যপালকে সরিয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটর পদে এবার ব্রাত্য!

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in