হেমতাবাদ - ব্রীজের দাবিতে ভোট বয়কট করা গ্রামবাসীদের উপর কেন্দ্রীয় বাহিনীর লাঠিচার্জের অভিযোগ

"নো ব্রীজ নো ভোট" এই স্লোগানকে সামনে রেখে বেশ কিছুদিন আগে থেকেই এলাকায় সেতু নির্মানের দাবিতে ভোট বয়কট আন্দোলনে নামে হেমতাবাদ বিধানসভার শেরপুর গ্রামের বাসিন্দারা
হেমতাবাদ - ব্রীজের দাবিতে ভোট বয়কট করা গ্রামবাসীদের উপর কেন্দ্রীয় বাহিনীর লাঠিচার্জের অভিযোগ
নিজস্ব চিত্র

ভোট বয়কটকারী আন্দোলনরত গ্রামবাসীদের উপর হামলা চালানোর অভিযোগ কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে হেমতাবাদ বিধানসভার শেরপুর গ্রামে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানেরা মেরে হাত মুখ ফাটিয়ে দেয় আন্দোলনকারী গ্রামবাসীদের। ভাঙচুর করা হয় তাঁদের বাড়িঘরও।

রায়গঞ্জ বিধানসভা এলাকার একের পর এক কেন্দ্রীয় বাহিনীর হামলায় ঘটনায় ক্ষুদ্ধ বিধানসভার ভোটাররা। " নো ব্রীজ নো ভোট " এই স্লোগানকে সামনে রেখে বেশ কিছুদিন আগে থেকেই এলাকায় সেতু নির্মানের দাবিতে ভোট বয়কট আন্দোলনে নামে হেমতাবাদ বিধানসভার শেরপুর গ্রামের বাসিন্দারা।

বৃহস্পতিবার ভোটের দিনে এলাকার ১২৯ এবং ১২৯ এ নম্বর বুথে ভোট কর্মীরা ভোটগ্রহনের সমস্তরকম প্রস্তুতি নিয়ে রাখলেও একজন গ্রামবাসীও ভোট দিতে আসেনি। ভোটগ্রহন কেন্দ্রের একটু দূরে আন্দোলনকারীরা একজোট হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। অনেকে আবার গ্রামে বসেই টিভি দেখছিলেন কিন্তু ভোট দিতে যাননি। এরপর আচমকাই শেরপুর গ্রামে প্রবেশ করে বিশাল কেন্দ্রীয়বাহিনী। কাউকে কোনও কিছু না বলেই গ্রামবাসীদের উপর আক্রমণ চালায় কেন্দ্রীয় বাহিনী।

কেন্দ্রীয় বাহিনীর লাঠির ঘায়ে আহত হন বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারী গ্রামবাসী। বাদ যায়নি গ্রামের মহিলারাও। অভিযোগ কেন্দ্রীয় বাহিনী ভাঙচুর চালায় আন্দোলনকারী গ্রামবাসীদের বাড়িঘরও। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শেরপুর গ্রামে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in