BJP: উপনির্বাচন থেকে পুরনির্বাচন, বঙ্গ বিজেপির ধারাবাহিক ভরাডুবিতে ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব

মাত্র দু'বছরে কেন এই অবস্থা, তার জবাবদিহি করতে পারে, এমনটা শোনা যাচ্ছে। কেন্দ্রের তরফের সবরকম সহযোগিতা থাকা সত্বেও কেন এই ভরাডুবি, তাই জানতে চাইবে তারা।
BJP: উপনির্বাচন থেকে পুরনির্বাচন, বঙ্গ বিজেপির ধারাবাহিক ভরাডুবিতে ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব
গ্রাফিক্স - নিজস্ব

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি যতই নজরকাড়া ফল করুক না কেন, চলতি বছরের তিনটে নির্বাচনে রাজ্যে মুখ থুবড়ে পড়েছে কার্যত। বিধানসভা নির্বাচন, বিধানসভা উপনির্বাচন ও কলকাতা পুরভোটে বিজেপিকে খুঁজে পাওয়া মুশকিল একপ্রকার। দলের সাংগঠনিক অবস্থা যে ভঙ্গুর, তাও যেন চোখে আঙল দিয়ে দেখিয়ে দিল এই ফল।

রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের মধ্যে যখন পারস্পরিক দোষারোপের পালা চলছে, তখন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রাজনীতিকদের উপর। মাত্র দু'বছরে কেন এই অবস্থা, তার জবাবদিহি করতে পারে, এমনটা শোনা যাচ্ছে। কেন্দ্রের তরফের সবরকম সহযোগিতা থাকা সত্বেও কেন এই ভরাডুবি, তাই জানতে চাইবে তারা।

দলীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে, দিনক্ষণ চূড়ান্ত না হলেও আগামী মাসে রাজ্য সফরে আসতে পারেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। আয়োজন করা হবে সাংগঠনিক বৈঠকের। সেই বৈঠকে তুলোধনা করা হতে পারে রাজ্য পার্টির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের। শুধু তাই নয়, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির বঙ্গ সকলের আগে রাজ্য নেতৃত্বকে রাজধানীতে ডেকে পাঠানো হতে পারে বলে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে।


গত বিধানসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব দফায় দফায় এসে প্রচার চালিয়ে ছিল রাজ্যে। দাবি করে, ক্ষমতায় আসবে বিজেপি। কিন্তু বাস্তব চিত্র ছিল সম্পূর্ণ আলাদা। গত ২ মে বিধানসভার ফলাফল ঘোষণা হতে দেখা যায় তিন অঙ্কের ঘরেও পৌঁছতে পারেনি গেরুয়া শিবির। ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর বারবারই দাবি করেছিলেন, বিজেপি কখনওই ৭০-৮০র বেশি আসন পাবে না। তাঁর কথাই সত্যিই হয়। শুধু তাই নয়, উপনির্বাচনেও দাঁত ফোটাতে পারেনি পদ্ম। মঙ্গলবার কলকাতা পুরসভার নির্বাচনের যে ফলাফল ঘোষিত হয়েছে, তাতে দেখা গেছে একপ্রকার সাফ হয়ে গিয়েছে পদ্ম শিবির।

পুরসভা নির্বাচনের আগে থেকেই অবশ্য দলের একটা অংশ দুর্বল সংগঠনের অভিযোগ জানিয়ে আসছিল। নির্বাচনের আগে পর্যন্ত সেই অর্থে সব ওয়ার্ডে প্রচার করতেপারেননি বিজেপি প্রার্থীরা। কেউ কেউ যথেষ্ট অর্থ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছিলেন। ফলে বিজেপির শোচনীয় অবস্থা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল অনেক আগেই। কলকাতা পুরসভার নির্বাচনেও ধরাশায়ী হয়েছে বিজেপি। ফলে দলের এহেন বিপর্যয়ে সার্বিকভাবেই ফের বিজেপি নেতৃত্বের মুখ পুড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে।

প্রকাশ্যে অবশ্য সাংগঠনিক ব্যর্থতার দায় নিতে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব। বরং এই নির্বাচনে কাঠগড়ায় তোলা হচ্ছে রাজনৈতিক সন্ত্রাসকেই। মঙ্গলবার দিল্লিতে বিজেপির অন্যতম সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘রাজ্যে গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। সর্বত্র আতঙ্ক। নির্বাচনের পরিবেশ নেই। তাই বিরোধী দলের সমর্থক ভোটাররা ভোট দিতে যাননি। উপনির্বাচনেও একই পরিস্থিতি হয়েছিল।’ সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব শুধু এই তত্ত্ব মেনে নিতে নারাজ।


উল্লেখ্য, জেপি নাড্ডার বঙ্গ সফরে এখনও গঠিত না হওয়া নতুন রাজ্য কমিটির সঙ্গে বৈঠক করা যায় কিনা, তাই সুনিশ্চিত করতে চাইছে বিজেপি।

BJP: উপনির্বাচন থেকে পুরনির্বাচন, বঙ্গ বিজেপির ধারাবাহিক ভরাডুবিতে ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব
KMC Result 2021: বিরোধী পরিসরে ক্রমশ জমি হারাচ্ছে বিজেপি, দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো বামেরা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in