কলকাতা ও সংলগ্ন ১১০ আসন নিয়ে চিন্তায় বিজেপি, দায়িত্বে ২২ দুঁদে নেতা
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

কলকাতা ও সংলগ্ন ১১০ আসন নিয়ে চিন্তায় বিজেপি, দায়িত্বে ২২ দুঁদে নেতা

রাজ্যের ১১০টি গুরুত্বপূর্ণ আসনে নিজেদের লড়াইটা কঠিন বলে মনে করছে পদ্মবাহিনী। তাই ২২ জন সাংগঠনিক নেতাকে এই আসনগুলির দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে ১৮টি আসন জয় করে বঙ্গে নিজেদের জোরালো ভাবে প্রতিষ্ঠা করেছিল গেরুয়া শিবির। সেই ফলাফলের উপর ভর করেই একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বঙ্গ দখলে ঝাঁপিয়ে পড়তে চাইছে বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বঙ্গ সফর অভ্যাস করে ফেলেছেন বলা যায়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও কয়েকবার রাজ্যে এসেছেন। আর প্রায়ই কোনও না কোনও কেন্দ্রীয় নেতা বাংলায় আসছেন, সভা করছেন।

এইসবই যাতে বৃথা না যায়, এবার সরাসরি ভোটারদের সঙ্গে সংযোগস্থাপনের কৌশল নিল তারা। রাজ্যের ১১০টি গুরুত্বপূর্ণ আসনে নিজেদের লড়াইটা কঠিন বলে মনে করছে পদ্মবাহিনী। তাই ২২ জন সাংগঠনিক নেতাকে এই আসনগুলির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এই আসনগুলির মধ্যে কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকা এবং কয়েকটি জেলাও আছে। এই ১১০টি আসন জিততে না পারলে যে ক্ষমতায় আসা যাবে না, তা বিলক্ষণ বুঝতে পারছে বিজেপি।

ভার্চুয়াল বৈঠকের মাধ্যমে বিভিন্ন রাজ্যের ২২ জন দুঁদে সাংগঠনিক নেতাকে এই ১১০টি আসনের দায়িত্ব দেওয়ার কথা জানিয়েছেন বিজেপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিবপ্রকাশ। আগামী ২৫–২৬ ফেব্রুয়ারি তাঁদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

বিজেপি সূত্রের খবর, এই বিশেষ দায়িত্ব প্রাপ্তদের মধ্যে আছেন মঙ্গল পাণ্ডে, রমেশ বিধুরি, রাজ্যবর্ধন সিং রাঠৌর, নীতিন নবীন, বিনয় সহর্ষবুদ্ধি, আশিস শেহলার, মদন লাল শর্মা, সতীশ উপাধ্যায়, নিশিকান্ত দুবে, বিনোদ শংকর, বিনোদ তাওদে, ধর্মেন্দ্র প্রধান, প্রদীপ সিনহা বাঘেয়াল, বসন্ত পাণ্ডে, আর কে সিং, রাধামোহন সিং-সহ অন্যান্যরা। যদিও বিজেপির পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে প্রকাশ্যে কিছু জানানো হয়নি।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in