মইদুলের মৃত্যুর জন্য দায়ী পুলিশ আধিকারিকদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তি দিতে হবে - সূর্যকান্ত মিশ্র
ছবি সংগৃহীত

মইদুলের মৃত্যুর জন্য দায়ী পুলিশ আধিকারিকদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তি দিতে হবে - সূর্যকান্ত মিশ্র

এই মুহূর্তে দীনেশ মজুমদার ভবনে এসে পৌঁছেছে মইদুল ইসলাম মিদ্যার মরদেহ। বাম নেতৃত্বের অভিযোগ অনুসারে গত ১১ ফেব্রুয়ারি বাম ছাত্র যুবদের ডাকে নবান্ন অভিযানে পুলিশের লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছিলেন ডিওয়াইএফআই কর্মী মইদুল। এদিনই সকালে তার মৃত্যু হয়।

যেভাবে তৃণমূল সরকারের পুলিশী বর্বরতায় শান্তিপূর্ণ গণআন্দোলনের কর্মীকে প্রাণ দিতে হল তাকে ধিক্কার জানানোর কোনো ভাষা নেই। এই বর্বরতার বিরুদ্ধে ছাত্রযুবদের প্রতিবাদ কর্মসূচীকে পার্টি সমর্থন করছে। পার্টির পক্ষ থেকে বাম গণতান্ত্রিক ধরমনিরপেক্ষ শক্তিগুলোকে যুক্ত করে ছাত্রযুবদের প্রতিবাদ কর্মসূচীর প্রতি সংহতি জানাতে হবে। সোমবার এক প্রেস বিবৃতিতে একথা জানিয়েছেন সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।

ওই বিবৃতিতে তিনি আরও জানান - গত ১১ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা ও কাজের দাবিতে কলকাতায় ছাত্রযুব সংগঠনগুলির ডাকা নবান্ন অভিযানে অংশ নিয়েছিলেন বাঁকুড়ার কোতুলপুরের যুবকর্মী মইদুল ইসলাম মিদ্যা। সেদিন পুলিশের বর্বর আক্রমণে আরও অনেকের সঙ্গে তিনিও আহত হয়েছিলেন, তাঁর আঘাত গুরুতর ছিল এবং তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। রবিবার রাত থেকে তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটে, সোমবার সকালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। ন্যায্য দাবিতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারীদের ওপরে পুলিশী বর্বরতায় শহীদের মৃত্যুবরণ করেছেন কমরেড মইদুল ইসলাম মিদ্যা।

ওই বিবৃতিতে মিশ্র আরও বলেন - সিপিআই(এম)’র পক্ষ থেকে আমরা দাবি করছি, শহীদ কমরেড মিদ্যার মরদেহের ময়নাতদন্তের কাজ সঠিকভাবে নিশ্চিত করতে সেই কাজের পূর্ণ ভিডিও রেকর্ডিং করাতে হবে এবং তাঁর মৃত্যুর জন্য দায়ী পুলিশ আধিকারিকদের চিহ্নিত করে তাঁদের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

নিহত শহীদ কমরেড মিদ্যার পরিবারের পাশে পূর্বের মতই সর্বতোভাবে থাকবার অঙ্গীকার করেছে সিপিআই(এম)। এদিনই বাঁকুড়ার কোতুলপুরে নিহতের বাড়ি গিয়ে পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছেন সিপিআই(এম) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অমিয় পাত্র এবং বাঁকুড়া জেলা সম্পাদক অজিত পতি। সঙ্গে ছিলেন ডিওয়াইএফআই-এর সর্বভারতীয় নেতা অভয় মুখোপাধ্যায়।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in