যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ দুর্নীতির জেরে বাতিল পুরো প্যানেল, বিপাকে ৩৫ হাজার প্রার্থী

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গ্রুপ-সি ও গ্রুপ-ডি-র পরীক্ষায় অংশ নেন প্রায় ৩৫ হাজার প্রার্থী। প্যানেলও তৈরি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু, প্যানেলে 'দুর্নীতির' আভাস মেলায়, পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ।
ছবিতে মাইক্রোফোন হাতে JU-র প্রাক্তন সহ-উপাচার্য প্রদীপ কুমার ঘোষ
ছবিতে মাইক্রোফোন হাতে JU-র প্রাক্তন সহ-উপাচার্য প্রদীপ কুমার ঘোষগ্রাফিক্স - নিজস্ব

স্কুল-কলেজের গন্ডি পেরিয়ে এবার নিয়োগ দুর্নীতির ছায়া পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে (Jadavpur University)। যার জেরে বাধ্য হয়ে গ্রুপ-সি ও গ্রুপ-ডি নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সূত্রের খবর, ২০১৯ সালের ১১ জানুয়ারি, গ্রুপ সি (Group C) ও গ্রুপ ডি (Group D)-র ১১৬টি শূন্যপদে কর্মী নিয়োগের একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। এরপর, গ্রুপ সি কর্মী নিয়োগের জন্য ২০২০ সালের ডিসেম্বর এবং গ্রুপ ডি-র জন্য ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে পরীক্ষা হয়। এই পরীক্ষায় অংশ নেন প্রায় ৩৫ হাজার প্রার্থী। পরীক্ষার পর প্যানেলও তৈরি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু, প্যানেলে 'দুর্নীতির' আভাস মেলায়, পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করেছে জেইউ কর্তৃপক্ষ।

এ প্রসঙ্গে, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য চিরঞ্জীব ভট্টাচার্য (Prof Chiranjib Bhattacharjee) জানান, 'ইসি (EC) নিয়োগ বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অনেক কিছু সমস্যা হয়েছিল। ইসির বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। তারপরেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।'

কিন্তু, পরীক্ষার পরও আচমকা এভাবে গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কেননা, ঠিক কী কারণে পুরো প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছে, তা নিয়ে মুখ খুলতে চায়নি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। আর, এই নিয়োগ বাতিল নিয়ে সরব হয়েছে যাদবপুরের অধ্যাপকদের সংগঠন জুটা (JUTA)।

বুধবার, পিপলস রিপোর্টার (People's Reporter)-কে জুটার সাধারণ সম্পাদক পার্থপ্রতিম রায় (Partha Pratim Ray) জানান, 'এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার প্যানেল তৈরি করেছিলেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আর, পরীক্ষাটি পরিচালনা থেকে প্যানেলের দায়িত্বে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন সহ-উপাচার্য প্রদীপ কুমার ঘোষ (Pradip Kumar Ghosh)।'

তিনি দাবি করেন, 'দায়িত্বপ্রাপ্ত যে এজেন্সি মাধ্যমে পুরো পরীক্ষাটি পরিচালিত হয়েছে, তাঁরা প্রার্থীদের কোনও কাগজ দেখাতে পারেনি। এবং, কিসের ভিত্তিতে প্যানেল তৈরি করা হয়েছে, তার কোনও জবাব দিতে তাঁরা পারেনি। কিন্তু, এই এজেন্সির বিষয়টি ছিল গোপনীয়, পুরোটাই তদারকি করতেন প্রদীপ বাবু, যাঁকে রেজিস্টার থেকে সহ-উপাচার্য করার জন্য বিধানসভায় আলাদা করে বিল পাশ করিয়েছিল তৃণমূল সরকার।'

ছবিতে মাইক্রোফোন হাতে JU-র প্রাক্তন সহ-উপাচার্য প্রদীপ কুমার ঘোষ
JU: চরম অর্থসংকটে ভুগছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, প্রাক্তনীদের কাছ থেকে অর্থ সাহায্য উপাচার্যের
ছবিতে মাইক্রোফোন হাতে JU-র প্রাক্তন সহ-উপাচার্য প্রদীপ কুমার ঘোষ
Gujarat Assembly Polls 22: গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে কোটিপতিদের লড়াই, দেখুন সেই তালিকা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in