Post Poll Violence: NHRC রিপোর্টে একাধিক তৃণমূল নেতার নাম - রাজ্য সরকারের সমালোচনা

রিপোর্টে পরিষ্কার বলা হয়েছে রাজ‍্যে 'আইনের শাসন নেই, শাসকের শাসন চলছে'। এমনকি রিপোর্টে কুখ‍্যাত দুষ্কৃতীর তালিকায় এক মন্ত্রী সহ একাধিক তৃণমূল নেতার নাম রয়েছে।
Post Poll Violence: NHRC রিপোর্টে একাধিক তৃণমূল নেতার নাম - রাজ্য সরকারের সমালোচনা
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

রাজ‍্যে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার ঘটনায় হাইকোর্টে রিপোর্ট জমা দিল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, যেই রিপোর্টের ছত্রে ছত্রে তৃণমূল সরকারকে আক্রমণ করা হয়েছে। রিপোর্টে পরিষ্কার বলা হয়েছে রাজ‍্যে 'আইনের শাসন নেই, শাসকের শাসন চলছে'। এমনকি রিপোর্টে কুখ‍্যাত দুষ্কৃতীর তালিকায় এক মন্ত্রী সহ একাধিক তৃণমূল নেতার নাম রয়েছে। ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি তুলে মামলা রাজ‍্যের বাইরে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে কমিশন।

গতকাল হাইকোর্টের পাঁচ বিচারপতির কাছে মুখবন্ধ খামে রিপোর্ট জমা দিয়েছে মানবাধিকার কমিশন। রিপোর্টে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের 'চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির' লাইন উল্লেখ করে বলা হয়েছে, যে মাটিতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম, সেই মাটিতে গত ২ মাসে হাজার হাজার মানুষের ওপর নৃশংস অত‍্যাচার হয়েছে। খুন, ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। যা অকল্পনীয়।

রিপোর্টে সরাসরি শাসক দলকে নিশানা করে বলা হয়েছে, শাসক দলের কর্মী-সমর্থকরা গোটা রাজ‍্যে হিংসার বাতাবরণ তৈরি করেছে। শাসক দলের দুষ্কৃতীদের আতঙ্কে বহু মানুষ ঘরছাড়া। এমনকি যৌন নির্যাতনের স্বীকারও হয়েছে অনেকে। দিনের পর দিন হিংসার ঘটনা বাড়তে থাকলেও সরকারের তরফ থেকে এই নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে বা তা রুখতে কোনো উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি।

এদিনের ৫০ পাতার রিপোর্টে এনএইচআরসি জানিয়েছে, ‘মোট ৯৩০৪ জন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। যার মধ্যে ১,৩৫৪ (১৪%) জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং এঁদের মধ্যে ৮০ শতাংশই জামিন পেয়ে গেছেন। অর্থাৎ ৩ শতাংশেরও কম জেলে আছেন এবং বাকী ৯৭ শতাংশ বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছে। যা সম্পূর্ণ ব্যবস্থাকেই পরিহাসে পরিণত করেছে।’

ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি তুলে কমিশনের রিপোর্টে বলা হয়েছে, ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনায় সিবিআই তদন্তের প্রয়োজন। আদালতের পর্যবেক্ষণে সিট গঠন করে তদন্ত করতে হবে। গোটা মামলার বিচারপ্রক্রিয়া রাজ‍্যের বাইরে করতে হবে। সাক্ষীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। হিংসায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করতে হবে।

রিপোর্টে প্রায় ১০০ জন কুখ্যাত দুষ্কৃতীর নাম উল্লেখ করেছে কমিশন। এর মধ্যে শাসক দলের একাধিক হেভিওয়েট নেতার নাম রয়েছে। যেমন - খাদ‍্যমন্ত্রী জ‍্যোতিপ্রিয় মল্লিক, শওকত মোল্লা, শেখ সুফিয়ান, উদয়ন গুহ, বিধায়ক পার্থ ভৌমিক, বিধায়ক খোকন দাস প্রমুখ। যদিও এই রিপোর্টকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে জানিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই রিপোর্ট সম্পর্কে জানিয়েছেন - এই রিপোর্টে যে যে ঘটনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে তার সবই নির্বাচনের আগে ঘটেছে। যে সময় রাজ্যে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব রাজ্য সরকারের হাতে ছিলোনা। নির্বাচন কমিশনের হাতে ছিলো। এই সমস্ত তথ্য বিকৃত করা হয়েছে। আমি আশা করবো আদালত আমাদেরও বলবার সুযোগ দেবে এবং তখন আমরা বিস্তারিত জানাবো।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in