'একদিন স্কুল বন্ধ হলে কিছু হয় না' - মমতার অনুষ্ঠানের জেরে পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ায় সাফাই ফিরহাদের

অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে কলকাতা জেলার ১৫৩ টি স্কুলের প্রত্যেকটিকে আজ নেতাজি ইন্ডোরে ৩০ জন পড়ুয়া পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই নির্দেশের জেরে স্কুলগুলিকে আজকের টেস্ট পরীক্ষা বন্ধ রাখতে হয়েছে।
ফিরহাদ হাকিম
ফিরহাদ হাকিম নিজস্ব চিত্র

'একদিন স্কুল বন্ধ হলে কিছু হয় না।' মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠানের জেরে উচ্চ মাধ্যমিকের টেস্টের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া প্রসঙ্গে এই মন্তব্য করলেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

সোমবার থেকে একাধিক স্কুলে উচ্চ মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল। এরই মাঝে আজ নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়াদের ট্যাব দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং। অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে কলকাতা জেলার ১৫৩ টি স্কুলের প্রত্যেকটিকে আজ নেতাজি ইন্ডোরে ৩০ জন পড়ুয়া পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই নির্দেশের জেরে স্কুলগুলিকে আজকের টেস্ট পরীক্ষা বন্ধ রাখতে হয়েছে। নতুন করে রুটিন তৈরি করতে হয়েছে। ফলে সরকারের এই নির্দেশ ঘিরে উঠছে প্রশ্ন।

সোমবার চেতলার বাড়ি থেকে বেরোবার সময় মন্ত্রী ও কলকাতা মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে, তিনি জানান, "গরীব ছাত্রছাত্রীদের হাতে একটা ট্যাবের অনেক মূল্য রয়েছে। একদিন স্কুল বন্ধ হলে কিছু হয়না। আজকে এমনিতেই অনেক স্কুল বন্ধ রয়েছে নেহরুজির জন্মদিনের উপলক্ষ্যে। আমাদের সময়েও বৃষ্টি হলে স্কুল বন্ধ হয়ে যেতে। এই সব বাহানা ছাড়া আর কিছু না।"

রাষ্ট্রপতিকে নিয়ে রাজ্যের মন্ত্রী অখিল গিরির বিতর্কিত মন্তব্য প্রসঙ্গে কলকাতার মেয়র বলেন, "একটা মানুষ প্রকাশ্যে একটা ভুল কথা বলে ফেলেছেন। তার জন্য তিনি ক্ষমা চেয়েছেন। তিনি অনুতপ্ত বলেছেন। এর বেশি একটা মানুষ কী করতে পারেন। তাহলে কি তাঁকে গ্রেফতার করে ফাঁসি দিয়ে দিতে হবে? তার পরে তাঁকে সুলিতে টাঙিয়ে দিতে হবে? তৃণমূল কংগ্রেস কখনও রং-বর্ণ-সম্প্রদায় নিয়ে রাজনীতি করে না। বিজেপি কি ভাবছে এই নিয়ে হইহই করে আদিবাসী ভোট নিয়ে নেবে? সেটা কোনও দিনেই হবে না, তার কারণ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আদিবাসী উন্নয়নের জন্য কাজ করেছেন।"

রাজ্যজুড়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে প্রশ্নের উত্তরে ফিরহাদ হাকিম জানান, "আমরা নিশ্চিত ভাবে এটা নিয়ে বসব। কোথায় কী আছে সেটা দেখে মিটিয়ে নেওয়া হবে।"

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in