Municipal Election: পুরভোটে CPIM-কে জোটবার্তা কংগ্রেসের, সাড়া দেবে আলিমুদ্দিন!

দু’টি উপনির্বাচনের ফলাফল বিশ্লষণ করে এবং গেরুয়া শিবিরের নিম্নগামী জনসমর্থনে আবার নড়েচড়ে বসেছে আলিমুদ্দিন ও বিধান ভবন।
Municipal Election: পুরভোটে CPIM-কে জোটবার্তা কংগ্রেসের, সাড়া দেবে আলিমুদ্দিন!
ফাইল চিত্র

পুরভোটে বামেদের সঙ্গে জোটের বার্তা দিলেন কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য। এই মঞ্চ থেকে তাঁর হাত ধরে একপ্রকার প্রচার শুরু করে দিল কংগ্রেস। ৪৮ নম্বর ওয়ার্ডের সম্ভাব্য কংগ্রেস প্রার্থী সন্তোষ পাঠক। তাঁর কালী পুজোর উদ্বোধনে আসেন প্রদীপ ভট্টাচার্য। সেখানে তিনি জানান, পরপর দু’টি উপনির্বাচনের ফলাফল থেকে বোঝা যাচ্ছে, বামেদের সঙ্গে জোট করে লড়াই করা যাবে।

প্রথম পর্বের উপনির্বাচনে কংগ্রেস ও দ্বিতীয় পর্বের উপনির্বাচনে ভোটব্যাংকের কিছুটা ফেরত পেয়েছে বামেরা। পাশাপাশি এই দুই পর্বের নির্বাচনে বিধানসভা নির্বাচনের মতো কল্কে পায়নি গেরুয়া শিবির। তৃণমূলের ভোট যেমন বেড়েছে, অন্যদিকে ভোট কমেছে বিজেপির। শুধু তাই নয়, ছয় মাস আগে গত মে মাসে বিধানসভা ভোটের যে ফলাফল প্রকাশিত হয়েছিল, তার থেকে নিজেদের ভোট ব্যাংক উন্নত করেছে বামেরা। বলা ভালো, বিজেপির ঘাড়ের কাছে উঠে এসেছে লাল ব্রিগেড।

অন্যদিকে সামশেরগঞ্জে প্রায় সত্তর হাজার ভোট পেয়েছে কংগ্রেস। বিজেপিকে সরিয়ে দ্বিতীয় হন কংগ্রেস প্রার্থী। আবার দ্বিতীয় উপনির্বাচনে শান্তিপুর বামেদের জায়গা কিছুটা হলেও ফিরে পায়। গত কয়েক বছরে তাদের ভোট প্রাপ্তি ক্রমশ কমেছে। গত বিধানসভা নির্বাচনে প্রাপ্তির খাতা শূন্য। সেই হিসেবে শান্তিপুর কিছুটা শান্তি দিচ্ছে আলিমুদ্দিনকে। ২০ শতাংশ ভোট পেয়েছে সিপিএম।

দু’টি উপনির্বাচনের ফলাফল বিশ্লষণ করে এবং গেরুয়া শিবিরের নিম্নগামী জনসমর্থনে নড়েচড়ে বসেছে আলিমুদ্দিন ও বিধান ভবন। যৌথভাবে রাস্তায় নামলে রামের ধরে চলে আসতে পারে বলে দু'পক্ষই আশাবাদী। তাই পুরভোটে জোট বেঁধে লড়াইয়ের পক্ষে বিধানভবনের একাংশ।

প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেন, আগেও একসঙ্গে লড়াই হয়েছে। আগামী দিনেও একসঙ্গে লাড়াই করা উচিৎ। যদিও সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তীর অভিযোগ, ভবানীপুরের উপনির্বাচনে জোটের শর্ত অমান্য করে কংগ্রেস। তারা সেখানে প্রার্থী দেয়নি। তাই বাধ্য হয়েই সিপিএম প্রার্থী দেয়। আবার শান্তিপুরে বাস্তব পরিস্থিতি তুলে ধরে কংগ্রেস নেতৃত্বের কাছে আবেদন করা হয় প্রার্থী না দেওয়ার। কিন্তু কংগ্রেস সেই আবেদন অগ্রাহ্য করে প্রার্থী দেয়।

যদিও, রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন, বাম শিবির কংগ্রেসের জোট বার্তায় আদৌ সাড়া দেবে কি?। শান্তিপুরে জোট না করেও ভোট বেড়েছে বামেদের। তারপরই বাম শিবির আশাবাদী হয়ে উঠেছে একক লড়াইয়ে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in