Mamata Banerjee: কেষ্ট কী এমন অপরাধ করেছে যে ওকে গ্রেপ্তার করলো? প্রশ্ন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

রবিবার ধৃত পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কেন্দ্র বেহালা পশ্চিমে এক জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কেষ্ট কী এমন অপরাধ করেছে যে ওকে গ্রেপ্তার করল? কেষ্টকে জেলে আটকে কী হবে? মাঝরাতে কেষ্টর ঘরে তো তান্ডব করেছে।
জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ছবি এআইটিএমসি অফিসিয়াল ফেসবুক ভিডিও থেকে স্ক্রীনশট

পার্থ চট্টোপাধ্যায় গ্রেপ্তার হবার পর তাঁকে তড়িঘড়ি দলের সব পদ থেকে সরিয়ে দিলেও সিবিআই-এর হাতে গ্রেপ্তার হওয়া অনুব্রত মণ্ডলের পাশেই দাঁড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার ধৃত পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কেন্দ্র বেহালা পশ্চিমে এক জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কেষ্ট কী এমন অপরাধ করেছে যে ওকে গ্রেপ্তার করল? কী করেছে কেষ্ট? কেষ্টকে জেলে আটকে কী হবে? মাঝরাতে কেষ্টর ঘরে তো তান্ডব করেছে। মাঝরাতে কেন সিবিআই বাড়িতে ঢুকেছে? একটা কেষ্টকে ধরলে লক্ষ কেষ্ট আসবে।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী তাঁর ভাষণে বলেন, তৃণমূলকে ভাঙার চেষ্টা করছে। ব্যর্থ হবে। বাংলা রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। এখানে ওসব হবেনা। মহারাষ্ট্র, ঝাড়খন্ডে টাকা দিয়ে সরকার ভাঙার চেষ্টা করেছে। মহারাষ্ট্রে ভেঙে দিয়েছে। ঝাড়খন্ডেও ভাঙার চেষ্টা করেছিল। আমরা ধরে দিয়েছি। এবার বাংলাকে ভাঙার চেষ্টা করছে।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী দিল্লির সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তুই কে রে? আমাকে পতাকা লাগানোর কথা বলবি? আমি কী খাব না খাবো বলে দিবি? জোর করে পতাকা তোলার কথা বলার তুই কে? আমাদের পরাধীন করে রেখে দিয়েছে। শেকল ভাঙতে হবে। তিনি আরও বলেন, যারা স্বাধীনতা আন্দোলনের পাঁচটা গান গাইতে পারে না, তাঁরা আজ বেশি করে দেশপ্রেমের কথা বলছে।

বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করে এদিন তিনি বলেন, তৃণমূলের ছেলেদের সকাল বিকেল নোটিশ পাঠিয়েই চলেছে। বিরোধীদের মুখ বন্ধ হলে কীভাবে বলব রাজনৈতিক স্বাধীনতা আছে? ওদের এজেন্সির লোক পোষা আছে। সব পার্টি চোর আর তোমরা সাধু? দুর্বল হবেন না। ওদের বিচার হবে জনতার আদালতে। কেঁচো খুঁড়তে গোখরো বেরিয়ে যাবে। আমি জানি ওদের কী প্ল্যান আছে। সব সরকারি সংস্থা বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। কটা ইডি সিবিআই হয়েছে?

তিনি আরও বলেন, দিল্লি গেলাম। বলছে সেটিং করতে গেছি। আমি যুক্তরাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করতে গেছিলাম। রাজ্যের টাকা চাইতে যাবো না? বিজেপি যাই বলুক ওদের গায়ে হাত দেবেন না। কুকুর কামড়ালে কুকুরকে কামড়াতে নেই। শুধু রাজনীতিবিদদের নয়, আমাদের অফিসারদেরও ধরে টানাটানি করছে। ভয় দেখাচ্ছে। আমার ৮ জন অফিসারকে ডেকে পাঠিয়েছে।

এদিন শুভেন্দু অধিকারীর নাম না করে তিনি বলেন, যত ইচ্ছা ভয় দেখাও। আমার প্রশাসন সাধারণ মানুষের পাশে আছে। বিজেপি নেতারা, মীরজাফররা শুধু হুমকি দিচ্ছে। বলছে দিল্লি গিয়ে ৫০ জনের নাম দিয়ে এসেছি। বলছে একে গ্রেপ্তার কর, ওকে গ্রেপ্তার কর। এত বাড় বেড়ো না। ঝড়ে পড়ে যাবে।

এদিনের সভা থেকে তিনি জানিয়েছেন আগামী ১৬ আগস্ট থেকে ফের মিটিং মিছিল আন্দোলন শুরু হবে। কাল স্বাধীনতা দিবসের পর আবার নতুন করে আন্দোলন শুরু হবে। আমাদের পরাধীন করে রেখেছে। রাস্তায় নামতে হবে। তাই নতুন করে আরেকটা রাজনৈতিক যুদ্ধ শুরু হবে। নতুন করে খেলা হবে। খেলা হবে দিবস থেকে পথে নামবে তৃণমূল। সবথেকে বড়ো চোর কে? সিপিএম কংগ্রেস বিজেপি ভাই ভাই। দেশে এঁদের ঠাই নাই। তোমরা বাংলা থেকে হাত ওঠাও।

এদিন তিনি বলেন, কী ভয় লাগছে? কাল যদি আমার বাড়ি যায় কী করবেন? রাস্তায় নামবেন তো? গোরু পাচারের টাকা পায় কে? বিএসএফ। তার মন্ত্রী কে? অমিত শাহ। কয়লার মন্ত্রী কে? কোল ইন্ডিয়া কার? তোমরা দায়িত্ব পালন করতে পারনি, তার দোষ আমাদের?

জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
Anubrata Mondal: গোরু পাচারকাণ্ডে সিবিআই-র হাতে গ্রেফতার অনুব্রত মণ্ডল

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in