বাবার স্বপ্নপূরণ করতেই IAS সেজেছিল দেবাঞ্জন !

বাবার স্বপ্নপূরণের গল্প করতে গিয়ে পরিবারকে জানিয়েছিল যে, সে আইএএস পরীক্ষা পাস করে বড় অফিসার হয়েছে। সেই খবর পাড়া-প্রতিবেশী,আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু মহলেও ছড়িয়ে পড়ে।
বাবার স্বপ্নপূরণ করতেই IAS সেজেছিল দেবাঞ্জন !
দেবাঞ্জণ দেবছবি- সোশ্যাল মিডিয়া

বাবার ইচ্ছা ছিল ছেলে বড় আইএএস বা ডাবলুবিসিএস অফিসার হবে। ছেলেও বাবার সেই স্বপ্নের ডুব দিয়ে একবার ইউপিএসসি পরীক্ষাও দিয়েছিল। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত সাফল্যও না পেয়েও পরিবারকে সত্যিটা জানায়নি। উল্টে বাবার স্বপ্নপূরণের গল্প করতে গিয়ে পরিবারকে জানিয়েছিল যে, সে আইএএস পরীক্ষা পাস করে বড় অফিসার হয়েছে। সেই খবর পাড়া-প্রতিবেশী,আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু মহলেও ছড়িয়ে পড়ে। আর তা উপভোগ করতে মিথ্যা আইএস অফিসার সেজে নিজেকে সর্বত্র প্রতিষ্ঠা করে গিয়েছে কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন ক্যাম্পের প্রধান অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেব।

আনন্দপুর থানা এলাকার মাদুরদহের বাসিন্দা ওই ধৃত দেবাঞ্জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য জানতে পেরেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আইএএসের প্রিলিমস পরীক্ষায় পাশ না করলেও পরিবারকে জানিয়েছিল যে, উত্তীর্ণ হয়েছে। নিজেকে আইএএস অফিসার হিসেবে পরিচয় দিয়ে অসংখ্য সরকারি অনুষ্ঠান,রক্তদান শিবির,সামাজিক অনুষ্ঠান,স্থানীয় কাউন্সিলরের অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে যোগদান করেছে দেবাঞ্জন। এভাবেই ভুয়ো পরিচয়কে হাতিয়ার করে পুলিশ, প্রশাসন, কলকাতা পুরসভা এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ স্থাপন করে ব্যক্তিগত যোগাযোগ বৃদ্ধি করতে থাকে সে। বিনামূল্যে মাস্ক, স্যানিটাইজার বিতরণ করে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ভাবমূর্তি তৈরি করতে। নিজেকে পুরসভার যুগ্ম কমিশনার হিসেবে পরিচয় দেয়। শুরু হয় ভ্যাকসিন দেওয়া পর্ব।

এখন প্রশ্ন,এত টাকা দেবাঞ্জন জোগাড় করল কীভাবে? এখনও পর্যন্ত তদন্তকারীদের হাতে তিনটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য এসেছে। তারমধ্যে কলকাতা পুরসভার নামে বেসরকারি ব্যাংকে একটি একাউন্ট আছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, কসবায় এক ব্যবসায়ীকে কমিউনিটি হল তৈরি করে দেবে বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। তার জন্য ওই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ৩৫ লক্ষ টাকা নিয়েছিল দেবাঞ্জন। অন্যদিকে, বেহালার এক ব্যক্তিকে পুরসভার বরাত পাইয়ে দেওয়ার জন্য ১০ লক্ষ টাকা নেয়।

শুক্রবার লালবাজার জানিয়েছে,কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে ডিসি ডিডি (৪)-এর নেতৃত্বে একটি বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করে তদন্ত শুরু হয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in