এতকিছু পেয়েও যারা আন্দোলন করছেন, তাঁরা শিক্ষক-শিক্ষিকা নন, বিজেপি ক্যাডার - ব্রাত্য বসু

ইতিমধ্যেই আত্মহত্যার চেষ্টা করা পাঁচ শিক্ষিকার বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। বিধাননগর উত্তর থানায় এই মামলা দায়ের হয়েছে।
এতকিছু পেয়েও যারা আন্দোলন করছেন, তাঁরা শিক্ষক-শিক্ষিকা নন, বিজেপি ক্যাডার - ব্রাত্য বসু
বিষ খেয়ে লুটিয়ে পড়ছেন শিক্ষিকারা এবং ব্রাত্য বসু

বিকাশ ভবনের সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করা শিক্ষিকাদের 'বিজেপির ক‍্যাডার' বলে মন্তব্য করলেন রাজ‍্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। আজ নিজের ফেসবুক পোস্টে শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে নেওয়া একাধিক সরকারি পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে এই মন্তব্য করেছেন তিনি। তাঁর এই কথাতেই স্পষ্ট বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের আন্দোলনকে রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখেছেন তিনি।

বাম সরকারের সাথে বর্তমান সরকারের তুলনা করে ব্রাত্য বসু ফেসবুকে লেখেন, "বাম সরকারের আমলে পঞ্চায়েত এবং গ্রামোন্নয়ন বিভাগের অধীনে SSK এবং MSK-র সহায়ক/সহায়িকা, সম্প্রসারক/সম্প্রসারিকারা নামমাত্র সাম্মানিক-এর বিনিময়ে কাজ করতেন। কাজের নিশ্চয়তা, আর্থিক নিরাপত্তা এবং অবসরকালীন সুযোগসুবিধা বলে কিছু ছিলো না। কিন্তু

মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে তৃণমূল সরকার ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ থেকে SSK এবং MSK-গুলিকে বিদ্যালয় শিক্ষা বিভাগের অধীনে এনে একটি সুসংবদ্ধ রূপ দেয়।"

রাজ‍্যের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বর্তমান সরকার কী কী সুবিধা দিয়ে থাকে পয়েন্ট করে করে তার উল্লেখ করেছেন ব্রাত্য বসু। তিনি লেখেন, "সহায়ক সহায়িকাদের সাম্মানিক বাড়িয়ে মাসিক ১০৩৪০ টাকা এবং সম্প্রসারক/সম্প্রসারিকাদের সাম্মানিক বাড়িয়ে ১৩৩৯০ টাকা করা হয়। এছাড়াও বাৎসরিক ৩% বৃদ্ধি বা ইনক্রিমেন্ট চালু করা হয়েছে। প্রত্যেককে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে নিয়ে আসা হয়েছে। যাঁরা ৬০ বছর বয়েসে অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন, তাঁদের অবসরের সময়ে প্রত্যেকের জন্য ৩ লাখ টাকা এককালীন অবসর-ভাতা চালু করা হয়েছে। বাকিদের জন্যও এই সুবিধা দানের বিষয়ে অর্থ দপ্তরের সঙ্গে ফাইল চলছে। ৬০ বছর বয়েসে অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত যাঁরা জানিয়েছেন, তাঁদের জন্য ১/২/২১ থেকে প্রভিডেন্ট ফান্ড চালু করা হয়েছে। মহিলাদের জন্য সরকারি নিয়মানুযায়ী মাতৃত্বকালীন ছুটির ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও প্রত্যেককের জন্য চিকিৎসা সংক্রান্ত সহ বাৎসরিক ১৮ দিন ক্যাজুয়াল লিভ বা ছুটির অধিকার দেওয়া হয়েছে।"

এরপরই তিনি লেখেন, "তারপরেও যাঁরা আন্দোলন করছেন, তাঁরা শিক্ষক শিক্ষিকা নন, বিজেপি ক্যাডার।"

ইতিমধ্যেই আত্মহত্যার চেষ্টা করা পাঁচ শিক্ষিকার বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। বিধাননগর উত্তর থানায় এই মামলা দায়ের হয়েছে।পুলিশের কাজে বাধা, আত্মহত্যার চেষ্টা, সরকারি নির্দেশ অমান‍্য সহ একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in