পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও দীপক কর
পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও দীপক করগ্রাফিক্স সুমিত্রা নন্দন

CSC: 'পার্থ - দীপকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন'- মুখ্যমন্ত্রীকে খোলা চিঠি কলেজ চাকরীপ্রার্থীদের

মুখ্যমন্ত্রীকে এক খোলা চিঠিতে চাকরীপ্রার্থীরা লিখেছেন, 'অবিলম্বে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও CSC চেয়ারম্যান দীপক কর-সহ নিয়োগ দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত সকলকে তদন্তের আওতায় নিয়ে আসুন।'

কলেজ সার্ভিস কমিশনে (CSC) নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আর্জি জানালেন চাকরীপ্রার্থীরা। মঙ্গলবার, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এক খোলা চিঠিতে চাকরীপ্রার্থীরা লিখেছেন, 'অবিলম্বে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও CSC চেয়ারম্যান দীপক কর-সহ এই নিয়োগ দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত সকলকে তদন্তের আওতায় নিয়ে আসুন।'

স্কুল হোক বা কলেজ- সর্বত্রই দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি, প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে ২১ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ED)। বর্তমানে আদালতের নির্দেশে দু-জনেই ইডির হেফাজতে আছেন।

এরই মাঝে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আর্জি জানিয়েছেন ২০১৮ কলেজ সার্ভিস কমিশনের নিয়োগ না পাওয়া মেধা তালিকাভুক্ত বঞ্চিত প্রার্থীরা।

খোলা চিঠিতে কলেজ চাকরী প্রার্থীরা মমতাকে লেখেন, 'স্কুল সার্ভিস কমিশন বা প্রাইমারি কমিশন-এর মতো ২০১৮ সালের কলেজ সার্ভিস কমিশনের নিয়োগেও বিপুল দুর্নীতির করে প্রকৃত মেধাবী ও যোগ্যদের বঞ্চিত করা হয়েছে।'

এ দিনের খোলা চিঠিতে দাবি করা হয়েছে, 'এ নিয়ে আপনাকে (পড়ুন- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) বহুবার ই-মেইল ও চিঠিতে জানিয়েছি আমরা। বারবার নবান্নে গিয়েও আমরা আপনার কোনও সদুত্তর পাইনি।'

চিঠিতে চাকরিপ্রার্থীরা দাবী করেন, 'পার্থ চট্টোপাধ্যায়, কমিশনের চেয়ারম্যান দীপক কর-সহ উচ্চশিক্ষা দফতর (Higher Education Department) এবং কলেজ সার্ভিস কমিশনের (CSC) বিভিন্ন আধিকারিক, ইন্টারভিউ বোর্ডের কিছু সদস্য (নাম আমাদের কাছে আছে) এই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত।'

তাঁরা চিঠিতে মমতাকে আরও জানিয়েছেন, 'টাকার বিনিময়ে মেধা তালিকা বহির্ভূত নিয়োগ, নেতা-মন্ত্রীর আত্মীয়-পরিজন চাকরী, কম যোগ্যদের চাকরি, অধিক যোগ্যদের মেধা তালিকার পিছনে ফেলে রাখা - সবকিছু করে স্বেচ্ছাচারের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রাখা হয়েছে। নিয়োগের কোনো নিয়মকেই না মেনে, সকলকে অন্ধকারে রেখে সমগ্র প্রক্রিয়া সংঘটিত হয়েছে। বঞ্চিত করা হয়েছে প্রকৃত মেধাবী, যোগ্যদের।'

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর কাছে তাঁদের দাবি, 'দুর্নীতির কারণে বঞ্চিত প্রার্থীদের দ্রুত নিয়োগের ব্যবস্থা করুন।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in