বাংলার নতুন রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস, জানুন তাঁর পরিচয়

অটোমিক এনার্জি এডুকেশন সোসাইটির চেয়রাম্যান ছিলেন সি ভি আনন্দ বোস। ইউরোপিয়ান কাউন্সিল ফর নিউক্লিয়ার এনার্জি এবং ইন্টারন্যাশনাল ফিউশন এনার্জি অর্গানাইজেশনে ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।
ডঃ সি ভি আনন্দ বোস
ডঃ সি ভি আনন্দ বোস

পশ্চিমবঙ্গের ২৩তম রাজ্যপাল হলেন প্রাক্তন আইএএস (IAS) ডঃ সি ভি আনন্দ বোস। পূর্ববর্তী রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের জায়গায় নিযুক্ত করা হল তাঁকে। এতদিন অস্থায়ী ভাবে এই দায়িত্ব পালন করছিলেন মণিপুরের রাজ্যপাল লা গণেশন।

অবশেষে ঘোষণা করা হল স্থায়ী পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের নাম। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যথেষ্ট দক্ষ একজনকে রাজ্যপাল হিসেবে পেতে চলেছেন রাজ্যবাসী। বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে প্রেস বিবৃতিতে নতুন রাজ্যপালের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি মেঘালয়ের রাজ্যপালের উপদেষ্টা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তিনি যে দক্ষ একজন প্রশাসক তা তাঁর অতীত দেখলেই বোঝা যায়।

কেরালার বাসিন্দা আনন্দ বোস ১৯৭৭-র ব্যাচের আইএএস অফিসার। ১৯৫১ সালের ২ জানুয়ারি কোট্টায়ামে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি। অর্থাৎ এই মুহূর্তে আনন্দ বোসের বয়স প্রায় ৭২। কেরলের কে ই কলেজ থেকে কলা বিভাগে স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর, কেরল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি ভাষা নিয়ে স্নাতকোত্তর হন তিনি। এবং পরে বিড়লা ইনস্টিটিউট থেকে পিএইচডি করেন।

কোল্লাম জেলার কালেক্টর পদে কাজ করেছিলেন আনন্দ বোস। কেরালা মুখ্যমন্ত্রীর সচিব, শিক্ষা, বন ও পরিবেশ, শ্রম সহ সরকারের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে অতিরিক্ত মুখ্য সচিবের দায়িত্ব দক্ষতার সাথে সামলে ছিলেন। অটোমিক এনার্জি এডুকেশন সোসাইটির চেয়রাম্যান ছিলেন তিনি। ইউরোপিয়ান কাউন্সিল ফর নিউক্লিয়ার এনার্জি এবং ইন্টারন্যাশনাল ফিউশন এনার্জি অর্গানাইজেশনে ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।

প্রশাসনিক জগতে তিনি মোদী ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত। জানা গেছে প্রধানমন্ত্রী তাঁকে ‘ম্যান অফ আইডিয়াজ়’ বলে ডাকেন। দেশের সবার জন্য পাকা বাড়ির ভাবনাটিও মোদী তাঁর কাছ থেকেই নিয়েছিলেন বলে জানা গেছে।

প্রশাসনিক কাজের মধ্যেও সময় বের করে বই লেখেন সি ভি আনন্দ বোস। ছোট গল্প, কবিতা, প্রবন্ধ ও উপন্যাস সংক্রান্ত ১৭টি বই লিখেছেন ডঃ বোস। ইংরাজী ও মালয়ালাম ভাষাতে প্রকাশ করা হয়েছিল সেগুলি। ৩ বছরের জন্য কেরালা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরা বক্তার স্বীকৃতি দখলে রেখেছিলেন তিনি। অনেক কঠিন জিনিস সহজ ভাষায় বোঝাতেন তিনি। যে কারণে ১৫টি স্বর্ণ-পদক সহ শতাধিক পুরস্কার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্জন করেছিলেন তিনি।

জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মিলিয়ে মোট ১৭টি পুরস্কার লাভ করেন। জওহরলাল নেহেরু ফেলোশিপ, রাষ্ট্রসংঘ থেকে ‘গ্লোবাল বেস্ট প্র্যাকটিস’, ভারত সরকারের দেওয়া ন্যাশনাল হ্যাবিটেট পুরস্কার সহ আরও অনেক পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি।

ডঃ সি ভি আনন্দ বোস
'CPI(M)-র সদর দপ্তর ঘেরাও করব' - বামপন্থী আইনজীবীদের হুঁশিয়ারি SLST চাকরিপ্রার্থীদের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in