নিজেকে চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিতে ঘৃণা বোধ হয়, অনুব্রতকাণ্ডে তোপ পদ্মশ্রীপ্রাপ্ত অরুণোদয়ের

তিনি বলেন - দুঃখ হয়, অনুশোচনা হয় যখন দেখি - আউটডোরে রোগীদের প্রাপ্য চিকিৎসা পরিষেবা না দিয়ে অনুব্রতের পদসেবা করতে উদগ্রীব হয়ে পড়লেন এইসব চিকিৎসকরা।
 অরুণোদয় মন্ডল ও অনুব্রত মন্ডল
অরুণোদয় মন্ডল ও অনুব্রত মন্ডলগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

নিজেকে চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিতে ঘৃণা বোধ হয়। কেন এইসব চতুর্থ শ্রেণীর রাজনীতিবিদদের পদলেহন? চাই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি। অনুব্রতকাণ্ডে এভাবেই তোপ দাগলেন পদ্মশ্রীপ্রাপ্ত চিকিৎসক ও সমাজসেবী অরুণোদয় মন্ডল। বৃহস্পতিবার অনুব্রত মণ্ডল গ্রেপ্তার হবার পর সংবাদমাধ্যমে তিনি জানান, “সাম্প্রতিক কালে এসএসকেএম-এর মত প্রথম সারির হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসকগণ এবং অতি সম্প্রতি বোলপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের সুপারসহ চিকিৎসকদের গর্হিত কাজকর্ম ও ইলেকট্রনিক মিডিয়াতে গলার শির ফুলিয়ে বক্তব্য রাখা ডাক্তার নির্মল মাঝি ও ডাক্তার শান্তনু সেনকে দেখে নিজেকে ডাক্তার হিসেবে পরিচয় দিতে ঘৃণা বোধ হয়।"

তিনি আরও বলেন, মেধাবী ও কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের চাকরির ক্ষেত্রে নানা সুযোগ-সুবিধা উপভোগ করার জন্য পার্থ চ্যাটার্জি, অনুব্রত মণ্ডলের মত নিকৃষ্টতম রাজনৈতিক ব্যক্তিদের পদলেহন করতে করতে নিজের অজান্তেই তাদের চিকিৎসক সত্তা লোপ পেয়েছে। দুঃখ হয়, অনুশোচনা হয় যখন দেখি - আউটডোরে রোগীদের প্রাপ্য চিকিৎসা পরিষেবা না দিয়ে অনুব্রতের পদসেবা করতে উদগ্রীব হয়ে পড়লেন এইসব চিকিৎসকরা।

ডাঃ মণ্ডল বলেন, এসএসকেএম-এর উডবার্ন ওয়ার্ড যেন বর্তমান তৃণমূলের দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা-নেত্রীদের বৈবাহিক সূত্রে প্রাপ্য সম্পত্তি। তাই ইডি বা সিবিআই এর ডাক পেলেই তাঁরা অসুস্থ হয়ে পড়েন, সোজা এসে ভর্তির সমস্ত প্রোটোকল না মেনে নিজেদের পছন্দের কেবিনে ভর্তি হয়ে কয়েকদিন অবসর যাপন করেন। আর তড়িঘড়ি এসএসকেএম এর সুপার স্পেশালিস্ট চিকিৎসকদের দিয়ে মেডিকেল বোর্ড তৈরি করে তাদেরকে গুরুতর অসুস্থ দেখানোর অপচেষ্টা হয়।

তাঁর কথায়, এমনই এক ঘটনা যখন নন্দীগ্রাম বিধানসভা নির্বাচনে নিশ্চিত হারের সম্ভাবনা জেনেও শুধুমাত্র জনসাধারণকে ধোঁকা দেওয়ার জন্য মমতা ব্যানার্জি অক্ষত পা এ দীর্ঘ ব্যান্ডেজ করার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছিল অনুপ্রাণিত এসএসকেএম-এর ডাক্তার নার্সদের মধ্যে। প্রথম থেকেই যদি চিকিৎসক হিসেবে সঠিক দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করেন, সরকারি চাকরিতে বদলির নিয়ম যদি মেনে নেন, তবে কেন এইসব চতুর্থ শ্রেণীর রাজনীতিবিদদের পদলেহন?

তিনি আরও বলেন, বোলপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট সহ অন্যান্য চিকিৎসকদের যাঁরা সরকারি হাসপাতালের কাজ ছেড়ে সামান্য এক রাজনৈতিক দলের জেলা সভাপতির বাড়িতে চলে গেছেন পদসেবা দিতে - তাদের কেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হবে না? যে সমস্ত চিকিৎসকরা সমাজের সাধারণ মানুষের কাছে অনুকরণীয় ও দৃষ্টান্ত, এ হেন পদস্খলন ক্ষমার অযোগ্য - চাই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি।"

(Except for the headline, this story has not been edited by People's Reporter and is published from a syndicated feed.)

 অরুণোদয় মন্ডল ও অনুব্রত মন্ডল
"অবিলম্বে মমতা ব্যানার্জীর বিবৃতি দেওয়া উচিত" - অনুব্রতর গ্রেফতারি প্রসঙ্গে মমতাকে কটাক্ষ সুজনের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in