WPI Inflation: পাইকারি বাজারে যুদ্ধের আঁচ, সর্বকালীন রেকর্ড ছুঁয়ে এপ্রিলে মূল্যস্ফীতি ১৪.৫৫%

মার্চ মাসে খাদ্যদ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধির হার ছিল ৮.০৬ শতাংশ। এপ্রিল মাসে তা বেড়ে হয়েছে ৮.৩৫ শতাংশ। এছাড়া, মার্চ মাসে সবজির মূল্য বৃদ্ধির হার ছিল ১৯.৮৮ শতাংশ। এপ্রিল মাসে তা বেড়ে হয়েছে ২৩.২৪ শতাংশ।
WPI Inflation: পাইকারি বাজারে যুদ্ধের আঁচ, সর্বকালীন রেকর্ড ছুঁয়ে এপ্রিলে মূল্যস্ফীতি ১৪.৫৫%
গ্রাফিক্স - নিজস্ব

পাইকারি বাজারে সর্বকালীন রেকর্ড ছুঁল মূল্যস্ফীতির হার। গত মার্চ মাসে পাইকারি বাজারে মূল্য-ভিত্তিক মূল্যস্ফীতির হার ছিল ১৪.৫৫ শতাংশ। এপ্রিল মাসের শেষে একধাক্কায় তা পৌঁছে গেছে ১৫.০৮ শতাংশে। মঙ্গলবার, এই তথ্য পরিবেশনের পর ডিপার্টমেন্ট ফর প্রমোশন অফ ইন্ডাস্ট্রি অ্যান্ড ইন্টারনাল ট্রেড (DPIIT) জানিয়েছে, জ্বালানী ও খাদ্যদ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণেই পাইকারি বাজারে মূল্যস্ফীতির হার লাফিয়ে বেড়েছে।

সরকারি তথ্যে আরও জানা গেছে, গত বছর এপ্রিল মাসে পাইকারি বাজারে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ১০.৭৪ শতাংশ। তারপর থেকে টানা ১৩ মাস ধরে মূল্যস্ফীতির হার ‘ডবল ডিজিট’এর মধ্যে রয়েছে। এক প্রেস বিবৃতিতে DPIIT- জানিয়েছে, ‘২০২২ সালের এপ্রিল মাসে অপরিশোধিত ক্রুড ওয়েল, প্রাকৃতিক গ্যাস, কেমিক্যালজাত পণ্য ও খাদ্য সামগ্রীর মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধির কারণে পাইকারি বাজারে মূল্যস্ফীতির হার বৃদ্ধি ঘটেছে।’

জানা গেছে, মার্চ মাসে পাইকারি বাজারে খাদ্যদ্রব্যে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৮.০৬ শতাংশ। তবে, এপ্রিল মাসে তা বেড়ে হয়েছে ৮.৩৫ শতাংশ। এছাড়া, মার্চ মাসে সবজির মূল্যে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ১৯.৮৮ শতাংশ। এপ্রিল মাসে তা বেড়ে হয়েছে ২৩.২৪ শতাংশ। আলুর মূল্যে মূল্যস্ফীতির হারও একলাফে ১৯.৮৪ শতাংশে পৌঁছে গেছে। তবে, মার্চ মাসের তুলনায় এপ্রিল মাসে পেঁয়াজের দাম কমেছে ৪.০২ শতাংশ।

এছাড়া, মার্চ মাসে ফলের বাজারে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ১০.৬২ শতাংশ। আর এপ্রিল মাসে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০.৮৯ শতাংশে। অন্যদিকে, ডিম, মাংস এবং মাছের মূল্য এপ্রিল মাসে ৪.৫০ শতাংশে নেমে এসেছে। মার্চ মাসে এই পণ্যগুলির মূল্যে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৯.৪২ শতাংশ।

মার্চ মাসে জ্বালানি ও পাওয়ার সেগমেন্ট খাতে ৩৪.৫২ শতাংশ মূল্যস্ফীতি লক্ষ্য করা গিয়েছিল। কিন্তু, এপ্রিল মাসে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮.৬৬ শতাংশ। পেট্রলের দাম বেড়েছে ৬০.৬৩ শতাংশ, এইচএসডি (হাই-স্পিড ডিজেল) বেড়েছে ৬৬.১৪ শতাংশ এবং এলপিজির দাম বেড়েছে ৩৮.৪৮ শতাংশ। উৎপাদিত পণ্যের সেগমেন্টে মূল্যস্ফীতি বেড়ে এপ্রিল মাসে ১০.৮৫ শতাংশ হয়েছে। আগের মাসে এই হার ছিল ১০.৭১ শতাংশ। আর এই মূল্যস্ফীতির হার বৃদ্ধির জন্য চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে দায়ি করা হয়েছে DPIIT-র প্রেস বিবৃতিতে।

WPI Inflation: পাইকারি বাজারে যুদ্ধের আঁচ, সর্বকালীন রেকর্ড ছুঁয়ে এপ্রিলে মূল্যস্ফীতি ১৪.৫৫%
পাইকারি মূল্যসূচক (WPI) নিয়ে সাধারণ মানুষ ভাবেন না, মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে সাফাই অর্থমন্ত্রীর

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in