Uttar Pradesh: মহিলার সঙ্গে দুর্ব্যবহারের ঘটনায় পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ

শনিবার এই ঘটনার ছবি এবং ভিডিও ভাইরাল হয়েছিলো সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে এক পুলিশ অফিসারকে এক মহিলার ওপর উঠে বসে গলা টিপে ধরতে দেখা গিয়েছিলো। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে এই ঘটনার কথা অস্বীকার করা হয়।
Uttar Pradesh: মহিলার সঙ্গে দুর্ব্যবহারের ঘটনায় পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ
উত্তরপ্রদেশের কানপুর দেহাতের ঘটনাছবি, অখিলেশ যাদবের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

এক মহিলার সঙ্গে দুর্ব্যবহারের ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিলো উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন। শনিবার এই ঘটনার ছবি এবং ভিডিও ভাইরাল হয়েছিলো সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে এক পুলিশ অফিসারকে এক মহিলার ওপর উঠে বসে গলা টিপে ধরতে দেখা গিয়েছিলো। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে এই ঘটনার কথা অস্বীকার করা হয়।

এই ঘটনার ছবি পোষ্ট করে গতকাল এক ট্যুইট করে সমাজবাদী পার্টির প্রধান এবং রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব বলেন, 'উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের দয়ায় কিছু পুলিশকর্মীর দুর্ব্যবহারে প্রদেশের সমস্ত পুলিশের নাম ধুলোয় মিশে যাচ্ছে। বিজেপির শাসনে দুঃশাসনের সংখ্যা কম নয়। খুবই নিন্দার।'

পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পর শনিবার রাতে সাময়িক ছুটিতে পাঠানো হয় অভিযুক্ত এস আই মহেন্দ্র প্যাটেলকে। এই ঘটনা ঘটে কানপুর দেহাত জেলায়। কানপুর দেহাত পুলিশের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানানো হয়, ওই মহিলা শিবম যাদবের পরিবার। যিনি গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে এক প্রার্থীকে হুমকি দিয়েছিলেন। শিবম যাদবের খোঁজে পুলিশ স্থানীয় দুর্গাদাসপুর গ্রামে গেলে ওই মহিলা পুলিশকে আক্রমণ করেন।

কানপুর দেহাতের এস পি কেশব চৌধুরী জানান, ভিডিওতে দেখা গেছে ভগ্নীপুর পুলিশ স্টেশনের ইনচার্জ মহেন্দ্র প্যাটেল ওই মহিলার ওপর চেপে বসে আছেন এবং মহিলা মাটিতে পড়ে আছেন। যদিও ওই মহিলার পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে তাঁরা পুলিশি আচরণের প্রতিবাদ জানানোয় এই ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, যাদব তাঁর কিছু বন্ধুদের সঙ্গে জুয়া খেলছিলো। সেই সময় পুলিশ তাঁকে আটক করতে গেলে তাঁর মা এবং স্ত্রী পুলিশকে আক্রমণ করে। এই ঘটনার সময়েই শিবম যাদবের স্ত্রী আরতি যাদব মাটিতে পড়ে যান। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে আরতি যাদব জানিয়েছেন, তিনি পুলিশের কাছে জানতে চেয়েছিলেন পুলিশ কেন তাঁর স্বামীকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। এরপরেই পুলিশ তাঁকে আক্রমণ করে, চড় মারে এবং টেনে ধরে মাটিতে ফেলে দেয় এবং আমার ওপর উঠে বসে এবং আমাকে মারতে শুরু করে। গ্রামবাসীর এসে আমাকে পুলিশের হাত থেকে উদ্ধার করে। তিনি আরও অভিযোগ করেন, তাঁর স্বামীকে ছেড়ে দেবার জন্য পুলিশ আধিকারিক মহেন্দ্র প্যাটেল তাঁর কাছ থেকে টাকা চান।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in