২০০ বছরেরও বেশি সময় ভারতে রাজত্ব চালিয়েছে আমেরিকা - তীর্থ সিং রাওয়াতের মন্তব্যে উত্তাল নেট দুনিয়া

গত সপ্তাহ থেকেই বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সংবাদ শিরোনামে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী রাওয়াত। এক অনুষ্ঠানে গিয়ে মেয়েদের ছেঁড়া জিন্স পরাকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, "দেশে এখন কাঁচি সংস্কৃতি চলছে।
২০০ বছরেরও বেশি সময় ভারতে রাজত্ব চালিয়েছে আমেরিকা - তীর্থ সিং রাওয়াতের মন্তব্যে উত্তাল নেট দুনিয়া
উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী তীর্থ সিং রাওয়াতছবি ট্যুইটার থেকে সংগৃহীত

২০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ভারতে রাজত্ব চালিয়েছে আমেরিকা! লাইনটা দেখে নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন? আবার হাসিও পাচ্ছে, তাই তো? তবে এখানেই অবাক হওয়ার পালা শেষ নয়। এর থেকেও অবাক করার কথা হল, এই ভুল ও হাস্যকর মন্তব্যটি করেছেন ভারতের একটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি শাসিত উত্তরাখণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী তীরথ সিং রাওয়াত। এর আগে একাধিকবার এই ধরণের হাস্যকর মন্তব্য করেছেন বিজেপি শাসিত ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব।

একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দেশের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকার প্রশংসা করছিলেন তীরথ সিং রাওয়াত। যা করতে গিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের কোভিড পরিস্থিতির তুলনা টানেন তিনি। তখনই এই ভুল মন্তব্য করেন রাওয়াত। তিনি বলেন, "নেতা হিসেবে নরেন্দ্র মোদীর জায়গায় অন্য কেউ থাকলে ভারতের কী হতো, আমি জানিনা। অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারত অনেক ভালো কাজ করেছে (করোনা মোকাবিলায়)। আমেরিকা, যারা ২০০ বছর ধরে আমাদের শাসন করেছিল, গোটা বিশ্বকে শাসন করেছিল, যারা বলতো সূর্য কখনো অস্ত যায় না, তারা এখন লড়াই চালাচ্ছে। সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা ৫০ লক্ষ ছাড়িয়ে গেছে এবং তারা আবার লকডাউনের পরে হাঁটছে।"

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহ থেকেই বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সংবাদ শিরোনামে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী রাওয়াত। এক অনুষ্ঠানে গিয়ে মেয়েদের ছেঁড়া জিন্স পরাকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, "দেশে এখন কাঁচি সংস্কৃতি চলছে। ডেনিমের ছেঁড়া জিন্স পরে হাঁটু দেখিয়ে নিজেকে ধনী এবং আধুনিক প্রতিপন্ন করা হয়। সেদিন এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় কর্মরতা এক মহিলাকে দেখলাম। তিনি গাম বুট এবং ছেঁড়া জিন্স পরে আছেন। তাঁর দুটি সন্তানও আছে। এরা যদি সমাজে কারোর সমস্যার সমাধান করতে যান তাহলে কী বার্তা যাবে সমাজে!" মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যে সমালোচনার ঝড় ওঠে সর্বত্র।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in