খোরি গ্রামের উচ্ছেদ নিয়ে আদালতের নির্দেশকে সমালোচনা রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার সংগঠনের

রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার সংগঠনের বিশেষজ্ঞরা উল্লেখ করেছেন, মহামারী পরিস্থিতিতে দেশের শীর্ষ আদালতের উচিত সকলের বাসস্থান ঠিক করা
খোরি গ্রামের উচ্ছেদ নিয়ে আদালতের নির্দেশকে সমালোচনা রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার সংগঠনের
খোরি গ্রামের বাসিন্দাদের বিক্ষোভ ছবি- নিউজ ক্লিক

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে খোরি গ্রাম ফাঁকা করার অভিযানকে নিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার বিশেষজ্ঞদের মন্তব্যকে দুর্ভাগ্যজনক বলে আখ্যা দিয়েছে ভারত। রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার সংগঠনের বিশেষজ্ঞরা উল্লেখ করেছেন, মহামারী পরিস্থিতিতে দেশের শীর্ষ আদালতের উচিত সকলের বাসস্থান ঠিক করা। সেখানে খোরি গ্রামের বাসিন্দাদের মাথার উপর থেকে ছাদ কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। অবিলম্বে আদালতের এই নির্দেশ প্রত্যাহার করা উচিত।

পার্মানেন্ট মিশন অফ ইন্ডিয়া ইন জেনেভা এবং ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের তরফে এক বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, এইরকমভাবে দেশের শীর্ষ আদালতকে নিয়ে অসম্মানমূলক মন্তব্য করা উচিত নয়। এরফলে দেশের সর্বোচ্চ আইনি প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্বকে অস্বীকার করা হয়েছে। কোনও গণতান্ত্রিক সমাজে এধরণের মন্তব্য কখনই করা উচিত নয়।

ইন্ডিয়ান মিশনের তরফে জানানো হয়েছে, ভারত সম্পূর্ণভাবে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার নিয়ে সচেতন। আর তা করতে সবরকমের পদক্ষেপও করা হয়ে থাকে। মানবাধিকার যাতে কোনওরকমভাবে লঙ্ঘন করা না হয় সেদিকেও সদা সচেতন দৃষ্টি নিক্ষেপ করা হয়ে থাকে। সুতরাং শীর্ষ আদালতে সবদিক খেয়াল রেখেই এমন নির্দেশ দিয়েছে।

খোরি গ্রামের বাসিন্দাদের বিক্ষোভ
Khori evictions: পুনর্বাসন প্রক্রিয়া অথৈ জলে, খোরি গ্রামে উচ্ছেদ চলছে জোরকদমে

যদিও খোরি গ্রামের বাসিন্দাদের পরিস্থিতি দেখলে সেটা মনে হবে না। রোজই বেশ কিছু বাসিন্দাকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। কোনওরকম পুনর্বাসন ছাড়াই রাস্তায় বসিয়ে দেওয়া হচ্ছে গ্রামের অসহায় বাসিন্দাদের। আবার কখনও প্রতিবাদ জানাতে গেলে পুলিশের লাঠিচার্জও চলছে। গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। মহামারী আবহে সাধারণ গরিব গ্রামবাসীরা কোথায় যাবেন, তার কোনও ব্যবস্থা না করেই আদালতের নির্দেশ পালন করে চলেছে হরিয়ানা সরকার।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in