ধর্ষণের অভিযোগ তোলা মহিলার মৃত্যুতে আরও সমস্যায় জেলবন্দী সাংসদ

এক সপ্তাহ আগে সুপ্রিম কোর্টের সামনে সাংসদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে মহিলা ও তাঁর এক পুরুষ বন্ধু গায়ে আগুন দেয়। শনিবার মহিলার বন্ধুটির মৃত্যু হয়।
ধর্ষণের অভিযোগ তোলা মহিলার মৃত্যুতে আরও সমস্যায় জেলবন্দী সাংসদ
প্রতীকী ছবি

সাংসদ অতুল রাইয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলা মহিলার মৃত্যু হলো দিল্লি হাসপাতালে। এক সপ্তাহ আগে সুপ্রিম কোর্টের সামনে সাংসদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে মহিলা ও তাঁর এক পুরুষ বন্ধু গায়ে আগুন দেয়। শনিবার মহিলার বন্ধুটির মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় জেলবন্দী বিএসপি সাংসদের সমস্যা আরও বাড়বে বলে অনুমান।

প্রয়াগরাজের জেলা সরকারী আইনজীবী (DGC, অপরাধ) গুলাব চন্দ্র অগ্রহরির মতে, ধর্ষণ এবং তারপর অভিযোগকারী ও তার বন্ধু, যিনি এই ঘটনার প্রধান সাক্ষী ছিলেন, দু'জনের মৃত্যুর ফলে অভিযুক্তের দোষী সাব্যস্ত হওয়ার সম্ভাবনা আরো বেড়ে যাবে। অভিযোগকারী এবং তাঁর বন্ধু দু'জনেই এমপি-এলএলএ আদালতে নিজেদের বয়ান রেকর্ড করিয়েছিলেন।

তিনি আরো জানিয়েছেন, অভিযোগকারী এবং তাঁর বন্ধু ছাড়াও বারাণসীর লঙ্কা থানার প্রাক্তন স্টেশন অফিসার ভারত ভূষণ তিওয়ারি, ইনভেস্টিগেশন অফিসার এবং এস আই আর সি পান্ডে, হেড কনস্টেবল রাঘব রাই, ডঃ রেশমী গুপ্তা, কনস্টেবল প্রীতি রাওয়াত, অমিত শ্রীবাস্তব ও শিবকুমার গৌড়ের বয়ান ইতিমধ্যেই এমপি-এমএলএ আদালতে রেকর্ড করা হয়েছে। এখন কেবলমাত্র অভিযুক্তের বয়ান নেওয়া বাকি রয়েছে, যিনি নৈনি জেলে বন্দী রয়েছেন।

২০১৯ সালের ১ মে লঙ্কা থানায় অতুল রাইয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছিলেন নির্যাতিতা। অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরই আত্মগোপন করেন অতুল রাই। পলাতক অবস্থাতেই ঘোষির সাংসদ হিসেবে জয়ী হন তিনি। এরপর ওই বছরেরই ২২ জুন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। তখন থেকেই জেলবন্দী রয়েছেন অতুল রাই।

পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছে এবং প্রয়াগরাজের এমপি-এমএলএ আদালতে এই মামলার শুনানি চলছে।

২০২০ সালের নভেম্বর মাসে অতুল রাইয়ের ভাই পবন কুমার নির্যাতিতার বিরুদ্ধে বারাণসীর ক‍্যান্টনমেন্ট পুলিশ স্টেশনে পাল্টা অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে বলা হয়, ধর্ষণের অভিযোগ দায়েরের সময় নির্যাতিতা যে নথি জমা দিয়েছেন তাতে নকল জন্ম তারিখ ব‍্যবহার করা হয়েছে। এই মামলায় এই মাসের শুরুতে বারাণসী আদালত নির্যাতিতা ও তাঁর সঙ্গীর বিরুদ্ধে অ-জামিনযোগ‍্য ধারায় পরোয়ানা জারা করে।

এরপরই গত ১৬ আগস্ট একাধিক শীর্ষ পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলে সুপ্রিম কোর্টের সামনে গায়ে আগুন দেন নির্যাতিতা ও তাঁর বন্ধু। গায়ে আগুন দেওয়ার আগে একটি ফেসবুক লাইভে তাঁরা অভিযোগ করেন সাংসদ ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের সাথে পুলিশের যোগাযোগ রয়েছে। তাঁরা আর ন‍্যায় বিচারের আশা করছেন না বলেও জানান।

- With inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in